ছিনতাই নাটক,সুনামগঞ্জে মামা-ভাগ্নে কারাগারে

নিজস্ব প্রতিনিধি:: ছিনতাইয়ের নাটক সাজাতে গিয়ে সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা আত্মসাতের ঘটনায় সুনামগঞ্জে গুণধর মামা-ভাগ্নেকে অবশেষে জেলে যেতে হল। করাগারে থাকা জেলার পৌর শহরের উত্তর মল্লিকপুরের মকবুল হোসেনের ছেলে জাকারিয়া ও তেঘরিয়ার ছাদ আহমদ চৌধুরীর ছেলে শাহিন আহমদ চৌধুরী। তারা দু’জন সম্পর্কে মামা-ভাগ্নে।

মামলার সুত্রে জানা যায়, সুনামগঞ্জ পৌর শহরের শহরের ওয়েজখালির বালু পাথর ব্যবসায়ী মো. ছয়ফুল মিয়া তারই প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী মো. জাকারিয়ার কাছে ৩ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার একটি চেক গত সোমবার ব্যাংক থেকে ভাঙিয়ে আনার জন্য পাঠান। জাকারিয়া ব্যাংক থেকে টাকা উঠিয়ে ওই বিকেল ৪টার দিকে এসে ছয়ফুল মিয়াকে বলেন- মল্লিকপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে থেকে টাকাগুলো একদল ছিনতাইকারী ছিনতাই করে নিয়ে গেছে। তাৎক্ষণিক সময়ে মো. ছয়ফুল মিয়া লোকজন নিয়ে এসে মল্লিকপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে এসে আশপাশের দোকানীসহ স্থানীয় লোকদের জিজ্ঞেস করে জানতে পারেন ওই এলাকায় কোনো ছিনতাইয়ের ঘটনাই ঘটেনি। এ সময় দোকান কর্মচারী জাকারিয়াকে পালানোর চেষ্টা করলে উপস্থিত জনতা জাকারিয়াকে আটক করে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় সোপর্দ করে।

পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদে জাকারিয়া স্বীকার করে ব্যাংক থেকে উত্তোলিত ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা মামা শাহীন আহমদ চৌধুরীর কাছে দিয়েছে এবং তার পরমর্শে টাকা আত্মাসাতের জন্য ছিনতাইয়ের নাঠক সাজিয়েছিলো। এরপর রাতেই পুলিশ শাহীনকে গ্রেফতার করে।

এ ব্যাপারে ব্যবসায়ী ছয়ফুল জাকারিয়া ও শাহীনের বিরুদ্ধে গত মঙ্গলবার রাতে থানায় প্রতারণামুলক অর্থ আত্মসাতের মামলা দায়ের করলে পরদিন গতকাল বুধবার (১৭ই জানুয়ারি) গ্রেফতারকৃতদের আদালতে হাজির করার পর সুনামগঞ্জ সদর জোনের চীফ জুডিসিয়াল আদালতের বিচারক তাদের জামিন না মঞ্জুর করে জেলা কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করেন।’

সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার এসআই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জালাল উদ্দিন বৃহস্পতিবার জানান, ব্যবসায়ীর খোয়া যাওয়া টাকা উদ্ধারে পুলিশী চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open