শিক্ষিত জাতি গঠনে শিক্ষার বিকল্প নেই– তাহমিনা খাতুন

নিজস্ব প্রতিনিধিঃঃ সিলেট প্রাথমিক শিক্ষা উপ-পরিচালক তাহমিনা খাতুন বলেছেন, দেশকে উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হলে শিক্ষার বিকল্প নেই। তাই শিক্ষিত জাতি গঠনে সবাইকে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে জগন্নাথপুর উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নের ৭৩নং আশারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে বিশেষ দাতা সম্মাননা প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আজকের কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীরাই একদিন উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ করবে।

তিনি অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ধন-দৌলত দিয়ে নয়, আপনাদের সন্তানদের শিক্ষিত করে সম্পদে পরিণত করতে হবে।

তিনি শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে বলেন, শিক্ষকদের সত্যিকারের মানুষ গড়ার কারিগর হতে হবে। কোমলমতি শিশুদের সু-শিক্ষার মাধ্যমে ভাল মানুষ হিসেবে তৈরী করতে হবে।

তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, জীবনে অনেক বড় হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে তোমাদেরকে মনযোগ সহকারে লেখাপড়া করতে হবে।

তিনি যুক্তরাজ্য প্রবাসী শেখ আবদুল হক তারেকের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, তিনি সাবেক ছাত্র হওয়ায় ২ জন বৃটিশ নাগরিককে উদ্বুব্দ করে অত্র বিদ্যালয়ের সীমানা দেয়াল নির্মাণের মাধ্যমে ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন।

অনুষ্ঠানে অত্র বিদ্যালয়ের সীমানা দেয়াল নির্মাণ করে দেয়ায় বিশেষ দাতা সম্মাননা প্রাপ্ত অতিথি বৃটিশ নাগরিক মিসেস ক্রিসেস পার্সি ও মি. জন ম্যান্ডস্ বক্তব্য রাখেন।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাজী আবদুল হান্নানের সভাপতিত্বে ও শ্রীরামসি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুল মালেকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সিলেট জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোহন লাল দাস, জগন্নাথপুর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন, ব্যারিস্টার এমএ লতিফ, আশারকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আবু ইমানী, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান কবি দ্বীনুল ইসলাম বাবুল, যুক্তরাজ্য প্রবাসী শেখ মো. আবদুল হক তারেক, প্রবাসী কাইয়ূম শাহ মস্তান, উপজেলা সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তা রাপ্রুচাই মারমা ও উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্রাক্টর হারুনুর রশীদ চৌধুরী। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আশারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পরিতোষ সরকার।

এ সময় উপজেলা সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তা মাসুম বিল্লাহ, নয়াবন্দর স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, সমাজসেবক মঞ্জুর আহমদ কবেরী, আবদুল করিম, যুক্তরাজ্য প্রবাসী শাহ মেনন আহমদ, সাবেক ইউপি সদস্য শাহ খায়রুল ইসলাম, কেশবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোশারফ হোসেন, সরকারি কর্মকর্তা নুর মুহাম্মদ, শিক্ষক আমিরুল ইসলাম, প্রথমবেলা ডটকমের সম্পাদক আবদুল লতিফ নুতন, জগন্নাথপুর উপজেলা প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক মো.শাহজাহান মিয়া, সমাজকর্মী মামুন আহমদ, মঞ্জুর আহমদ, সাহেদ আহমদ, আলমগীর হোসেন, কণ্ঠশিল্পী দিপন এসডি, আশারকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নাজিম উদ্দিন ভূইয়া, অসিমা রাণী ধর, রঞ্জিতা রাণী তালুকদার, রিনা বেগম, মমিনা বেগম, সীতেশ কুমার দাস সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন বিদ্যালয়ের ছাত্রী কলসুমা বেগম ও গীতা পাঠ করেন অনন্যা সূত্রধর। অনুষ্ঠানে সকল অতিথিকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন শিল্পীসহ শিক্ষার্থীরা। এছাড়া অনুষ্ঠানে বিশেষ দাতা সম্মাননা প্রাপ্ত বৃটিশ নাগরিক মিসেস ক্রিসেস পার্সি বলেন, সাবাস বাংলাদেশ, এগিয়ে যাও। আরেক বিশেষ অতিথি সিলেট জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোহন লাল দাস বলেন, বৃটিশরা এক সময় আমাদের দেশকে নিয়েছে, এখন তারা দিয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open