পল্লী বিদ্যুৎ এর গাফিলতিতে জৈন্তাপুরে প্রাণ গেলো একই পরিবারের ৩ জনের

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: সিলেট-তামাবিল মহামড়কের জৈন্তাপুরে খাম্বা বোঝাইকৃত ট্রাক ও জাফলংগামী যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে শিশুসহ একই পরিবারের তিনজনের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এঘটনায় আহত হয়েছেন আরো অন্তত ২০ জন।

গতকাল শনিবার (১৩ই জানুয়ারী) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা বিরতী বাস (সিলেট-জ-১১-০৪৬৮)’র সাথে সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর খাম্বা বোঝাইকৃত ট্রাক (চট্ট-মোট্ট-ট-১১-৫৯৯০) এর সাথে মুখোমুখি সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী দাবী করে বলছেন, দূর্ঘটনার মূল কারন সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর রাস্তার জায়গা দখল করে খাম্বা ড্রাম্পিং করা। জাতীয় স্থানীয় এবং অনলাইন সংবাদ মাধ্যমে একাধিক বার প্রকাশের পরও খাম্বা সরায়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। উপজেলা প্রশাসন নিরব ভূমিকা পালন।

নিহতরা হলেন- মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার ভাড়াউরা গ্রামের তপন তালুকদারের শ্রী শুক্লা রানী (২০), তার শিশু কন্যা ইতপা রানী (৫), তার শাশুড়ী অমকা রানী (৫৫)।

আহতরা হলেন- হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার মিলন চার্য (৩২) তার স্ত্রী শিপ্রা চার্য (২৩) জৈন্তাপুর উপজেলা দরবস্ত ইউনিয়নের ভাইটগ্রামের মৃত সাইফ উল্লার ছেলে হাবিবুর রহমান (৫০) অন্যান আহতদের নাম পাওয়া যায়নি।

ঘটনার সংবাদ পেয়ে জৈন্তাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ খাঁন মো: মাইনুল জাকির, দরবস্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাহারুল আলম বাহার ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানান, অপরিকল্পিতভাবে সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ সড়কের দুই পাশ্বের ফুটপাত দখল করে খাম্বা রাখা এবং সড়কের মধ্যে ট্রাক দাঁড় করিয়ে লোড-আনলোড করার কারনে রাস্তা পারাপার হতে ঝুকি নিয়ে চলাচল করেতে হচ্ছে জনসাধারনকে। এনিয়ে উপজেলা নির্বাহী বরাবরে এলাকাবাসী আবেদন এবং জাতীয় স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে স্বচিত্র সংবাদ প্রকাশ করলেও সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ খাম্বা না সরিয়ে প্রতিনিয়ত খাম্বা রেখে সড়কের দুপাশ্ব দখল করে রেখেছে। তাদের দাবী এ দূর্ঘটনার দায় ভার সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এবং স্থানীয় জৈন্তাপুর উপজেলা প্রশাসনকে নিতে হবে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ খানঁ মো: মাইনুল জাকির বলেন, ঘটনার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে এসেছি। চেয়ারম্যানসহ গন্যমান্যদের নিয়ে এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রাখার চেষ্টা চালাচ্ছি।

Sharing is caring!

Loading...
Open