দক্ষিণ সুরমায় ২৩টি ক্রাশার মেশিন অকেজো, মালিকরা পলাতক

সুরমা ডাইকে দখলমুক্ত করতে অভিযান

দক্ষিণ সুরমার কদমতলী এলাকা থেকে শুরু হওয়া কুচাই এলাকা পর্যন্ত সুরমা নদীর ডাইকের উপর চলে আসা অবৈধ পাথর ব্যবসায় অভিযান চালানো হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকেল ৩টায় দক্ষিণ সুরমা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহেদ মোস্তফার নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, পরিবেশ অধিদপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আলতাফ হোসেন, আলমপুর পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ শেখ রুবেল।
অভিযানে আলমপুর এলাকার লিলু মিয়ার শিক্ষা বোর্ডের পিছনে সুরমা নদীর ডাইকের উপর চালিয়ে আসা পাথর ভাঙ্গার ক্রাশার মেশিন ২টি, কুচাই এলাকায় গোলাপগঞ্জ উপজেলার সরফ উদ্দিন, আলিম উদ্দিন, কুনু মিয়া, উস্তার মিয়া, নাসির সহ ওই এলাকায় ১০টি এবং কদমতলী ২৬ নং ওয়ার্ড একালায় সুরমা নদীর ডাইকে ১১টি ক্রাশার মেশিন অকেজ করা হয়। এসময় অবৈধ ভাবে চালিয়ে আসা পাথর ব্যবসার মালিক পক্ষ কাউকে ঘটনাস্থলে পাওয়া যায় নি।
এ বিষয়ে দক্ষিণ সুরমা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও অভিযান পরিচালনায় নেতৃত্ব শাহেদ মোস্তফা বলেন, সুরমা নদীর ডাইকের উপর পাথর ব্যবসা সম্পূর্ণ বে-আইনি ও অবৈধ এবং পরিবেশ বিধ্বংসী। আজকের অভিযানে ২৩টি ক্রাশার মেশিন অকেজো করা হয়েছে। এর সাথে যত ক্ষমতাশালী ব্যক্তি হন কোনভাবে পরিবেশ ধ্বংস হতে দেয়া হবে না। তিনি বলেন, পরিবেশ রক্ষায় আমরা সব সময় সোচ্চার। পরিবেশ রক্ষায় এই অভিযান আগামী দিনে অব্যাহত থাকবে।
মালিক পক্ষের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবসা বা ক্রাশার মেশিন জব্দ করা হবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, অভিযানে মালিক পক্ষ কেউ উপস্থিত না থাকায় তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছে না। এবং ক্রাশার মেশিন ভারি যন্ত্র থাকায় উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে বলা হয়েছে। পরবর্তীতে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Sharing is caring!

Open