রাজনগরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত অর্ধশত, আটক ৬

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার আমিরপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কমিটি গঠন নিয়ে পূর্ব বিবদমান দুই পক্ষের ২ ঘন্টা ব্যাপি মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় কয়েকটি ঘরবাড়ি ভাংচুর ও লুটপাট করা হয়। এতে অর্ধশতের বেশি নারী পুূরুষ আহত হয়েছেন। আহতদের সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ, মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যার হাসপাতাল, রাজনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি ও প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। রাজনগর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়নের আমরিপুর গ্রামের কামরুজ্জামান হাম্মাদ ও ওয়াছির মিয়ার মধ্যে পূর্ব থেকে বিরোধ চলছিল। গত বৃহস্পতিবার (৭ই ডিসেম্বর) আমিরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য নির্বাচনের জন্য অভিভাবকদের নিয়ে সভা ডাকেন প্রধান শিক্ষক রমা কন্তু দেব। এক পক্ষকে নিয়ে সভা করার অভিযোগ এনে ওয়াছির মিয়ার পক্ষের স্থানীয় ইউপি সদস্য তারেক রহমান কর্ণেল বাধা দেন এবং সভা না করার জন্য বলেন। এসময় উভয় পক্ষকে স্থানীয়রা শান্ত করে দেন।

এনিয়ে পরদিন শুক্রবার (৮ই ডিসেম্বর) উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয়পক্ষে ১৫ জনেরও বেশি আহত হন। বিষয়টি সমাধানের জন্য স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শামছুন নূর আজাদ ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মিহির কান্তি দাস মঞ্জু চেষ্টা করেন। বিভিন্ন শর্তের কারণে উভয়পক্ষ সমাধানের পক্ষে যায়নি। এনিয়ে গত মঙ্গলবার বিকাল থেকে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে। পরে আজ বুধবার (১৩ই ডিসেম্বর) উভয় পক্ষ দেশিয় অস্ত্র নিয়ে ওয়াছির মিয়ার ছেলে মগলা মিয়া পক্ষ ও কামরুজ্জমান হাম্মাদের পক্ষ সকাল ১১টা থেকে ২ঘন্টা ব্যাপি মুখোমুখি সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এসময় বিভিন্ন বাড়িঘর ভাংচুর ও লুট করা হয়েছে বলে উভয় পক্ষ অভিযোগ করেছে। খবর পেয়ে রাজনগর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পরে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনোয়ারুল হক, সারওয়ার জাহান, রাজনগর থানার ওসি শ্যামল বণিক, ওসি তদন্ত আবু তাহেরসহ অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। উভয় পক্ষের সংঘর্ষে অর্ধশত আহত হয়েছেন।

আহতরা হলেন- কফিল মিয়া (৪০), রফু মিয়া (৩৫), খালেদা বেগম (৪০), বলু মিয়া (৫০), সুনু মিয়া (২৬), আলামিন (২৭), জুনেদ মিয়া (৪০), শহিদ মিয়া (২৩), দুলাল মিয়া (২৬), ইয়াছিন শিয়া (৩৫), সফর মিয়া (৩৫), জিকির মিয়া (৩২), সেলন মিয়া (৩৬), ইসমন মিয়া (২৭), হুসাইন (২২), রুবেল (২৭), শাহিন মিয়া (২২), শামিম (৩৮), জুয়েল (২০), জুনেদ মিয়া (৪২), হাকিম মিয়া (২৮), রিমন মিয়া (২৬), শাপলু মিয়া (১৭), হাবিব মিয়া (১৫), সালাউদ্দীন (২৫), জফর আলীসহ (২০) অর্ধ শত আহত হয়েছেন। এঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। রাজনগর থানার পুলিশ সেখানে টহল দিচ্ছে।

এদিকে সংঘর্ষের পর পুলিশ ওই এলাকা উভয়পক্ষের ৬জনকে আটক করেছে। আটককৃতরা হলেন, আলেক মিয়া (৩০) সফর মিয়া (৪০), ইয়াছির মিয়া (৩০), ইজাব মিয়া (৪৫), ফখরুল ইসলাম (২৫) ও আফাং মিয়া (৩০)।

এব্যাপারে রাজনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক বলেন, প্রাইমারি স্কুলের কমিটি নিয়ে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছিল। কয়েকজন আটক আছে। পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে। থানায় কেউ এখনো অভিযোগ দেয়নি।

Sharing is caring!

Loading...
Open