কুলাউড়ায় চেয়ারম্যান আহমদ কমরু লাঞ্চিত করলেন বাজারের ব্যাবসায়ী সমিতির সভাপতিকে,


সুরমা টাইমস ডেস্ক:: মৌলভীবাজারে কুলাউড়া উপজেলার জয়চন্ডি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কমর উদ্দিন আহমদ কমরু লাঞ্চিত করলেন বাজারের ব্যাবসায়ী সমিতির সভাপতি খুরশিদ আলীকে।

এসময় বাঁধা দিতে আসলে তৈমুছ আলী নামে আরেকজন লাঞ্চনার শিকার হোন। এঘটনায় কুলাউড়া থানার সামনে তাৎক্ষনিক বিক্ষোভ মিছিল করে সড়ক অবরোধের চেষ্টা করে লাঞ্চনার শিকার ব্যক্তিদের স্বজন ও স্থানীয়রা।

বুধবার (২৯ নভেম্বর) রাত ৮ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। কুলাউড়া থানার ওসি (তদন্ত) বিনয় ভূষণ রায় ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিলে কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রেনুর অনুরোধে বিক্ষুব্ধ স্থানীয়রা সড়ক অবরোধ তুলে নেয়।

লাঞ্চিত তৈমুছ আলী বলেন, এশার নামাজের সময় গাজিপুর মসজিদ থেকে ৪টি দোকান পূর্ব পাশে চেয়ারম্যান-মেম্বাররা মাইক বাজাইয়া কিতা (কি একটা) কর্মসুচি পালন কররা। এসময় গাজিপুর বাজার ব্যাবসায়ী সভাপতি খুরশিদ আলী চেয়ারম্যানকে মাইকের সাউন্ড কমানোর জন্য অনুরোধ করেন। আমিও সমর্থন করি। এসময় চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন, আমি কি বেঠিন (মহিলা) নাচাচ্ছি? তোমাদের এতো বড় সাহস আমারে কথা কও। একপর্যায়ে ব্যবসায়ী খুরশীদ আলীকে চড়-থাপ্পর মারেন। আমি কাছে গেলে আমাকেও ঘুষি মারেন। আমার নাক দিয়ে অনেক রক্ত বের হয়।ঘটনা জানাজানি হলে লোকজন জড় হয়ে বিক্ষোভ করছেন।

এদিকে রাত ৯ টার দিকে কুলাউড়া থানার সামনে অবস্থান নেয় বিক্ষুব্ধ স্থানীয়রা। সড়ক অবরোধ করে তারা চেয়ারম্যান কমরুকে গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছিলেন।

এসময় স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা মাহবুবুর রহমান বলেন, আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে কমরুকে গ্রেফতার করা না হলে কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে।

তবে এবিষয়ে চেয়ারম্যান কমর উদ্দিন আহমদ কমরুর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলে উনাকে পাওয়া যায়নি।

কুলাউড়া থানার ওসি (তদন্ত) বিনয় ভূষন রায় বলেন, আমরা ঘটনার তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

উল্লেখ্য, এর আগে গত ৪ নভেম্বর জয়চন্ডি ইউনিয়ন পরিষদে মৃত জিতু মিয়ার কলেজ পড়ুয়া মাহবুব আলম জন্ম নিবন্ধন ও বাবার মৃত্যু সদন আনতে গেলে চেয়ারম্যান কমরুর হাতে লাঞ্চিত হয়। ওই ঘটনায় চেয়ারম্যান বেশ সমালোচিত হয়েছিলেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open