পুলিশের সামনেই শ্রমিক লীগের লাঠি মিছিল

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: জাতীয় শ্রমিকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ- সভাপতি জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি প্রকৌশলী এজাজুল হক এজাজকে কটুক্তি করার প্রতিবাদে বুধবার বিকেলে সেলিম আহমদ ফলিক গংদের অবৈধ চাদাবাজি ও ঘনঘন পরিবহন ধর্মঘটের হুমকির প্রদানের বিরুদ্ধে জাতীয় শ্রমিকলীগ জেলা ও মহানগর শাখার উদ্যোগে তাৎক্ষনিক বিক্ষোভ মিছিল বের করে।

মিছিলটি রেজিস্ট্রারী মাঠ হইতে শুরু করে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে কোর্ট পয়েন্টে এসে রাস্তা অবরোধ করলে প্রশাসনের আশ্বাসে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। মহানগর শ্রমিকলীগের সভাপতি ও সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা এম শাহরিয়ার করির সেলিম এর সভাপতিত্বে সভায় বক্তারা সিলেটের দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, কেন্দ্রীয় শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি সিলেটের কৃতি সন্তান প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা প্রকৌশলী এজাজুল হক এজাজ এর জনপ্রিয়তা ঈর্শনীয় হয়ে ফলিক গং পরিবহন দৃস্কৃতিকারীরা পরিবহন সেক্টরকে ব্যবহার করে সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে ব্যহত করার লক্ষে বিভিন্ন অপকর্মে লিপ্ত যার বহিঃপ্রকাশ পরিবহন সেক্টরের ফলিক জাকারিয়া। তাদের নিজেদের মধ্যে শ্রমিক বিভক্ত ও ক্ষোদ্ধ যাহা তাদের বিরোধী পক্ষে বিরোধ ঘঠে। যাহা শ্রমিকলীগকে দোষারুপ ও কূরুচি বক্তব্য প্রদান করে আসছে। তার পরিপেক্ষিতে তাৎক্ষনিক কর্মসূচীকে বাস্তবায়নে লক্ষে বিভিন্নকর্মসুচী করে আসছে ইতি মধ্যে জাকারিয় ফলিকের ছত্র ছায়ায় জামাত বিএনপির পালিত সন্ত্রাসী দ্বারা ছাত্রলীগ যুবলীগ শ্রমিকলীগের বেশ কয়েক জন নেতাকর্মীকে গুরুতর আহত করেছে। আমরা দৃড় চিত্রে বলতে চাই প্রশাসন কঠোর হলে সেই সকল চাদাবাজদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিলে সিলেটের শান্তি প্রিয় মানুষ স্বস্তি পাবে।

জাতীয় শ্রমিকলীগ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া সংগঠন। এমতাবস্থায় শেখ হাসিনা ব্যাপক উন্নয়নের কর্মকান্ডকে বাধাগ্রস্থ করার লক্ষে জামাত বিএনপির দূশর, পরিবহন সেক্টরকে চাঁদাবাজ জাকারিয়া ফলিক গংদের সমুচিত জবাব দেয়ার জন্য সকল শ্রেনীর শ্রমজীবী মানুষ ঐক্যবদ্ধ। অবিলম্বে ফলিক গংদের গ্রেফতার করে আইননের আওতায় নিয়ে আসার জন্য জোর দাবি জানান নেতৃবৃন্দরা। অন্যথায় বৃহত্তর সিলেটের সর্বস্তরের শ্রমিকদেরকে নিয়ে ব্যাপক আন্দোলনের কর্মসুচী গ্রহন করা হবে এবং চাদাবাজ ও দুর্নীতিবাজরা পালিয়ে যাবার পথ পাবেনা।

বিক্ষোভ মিছিলে বক্তব্য রাখেন- ফরহাদ হোসেন, মকবুল হোসেন খান, মাসুক মিয়া, ফয়সল মাহমুদ, আব্দুল মালেক তালুকদার, মোশারফ হোসেন জাকির, শাহ আলম সুরুক, আফিকুর রহমান আফিক, এনামুল হক লিলু, নজরুল ইসলাম, আলম মোল্লা, আব্দুল জলিল, হরিলাল দাশ, পুলক সরকার, সাঈদ ইকবাল, সালা উদ্দিন মাসুম, জকি খাঁন, কানু কাঞ্চন, মো. সুহেল মিয়া, রাসেলুজ্জামান, রাইমুল ইসলাম, আব্দুল আহাদ, মো. সালমান, হাসু এমাদ উদ্দিন, হুমায়ুন হোসেন, সুন্দরআলী, নজমুল ইসলাম মাসুম, লয়লুছ আহমদ চৌধুরী, আবুল ফয়েজ , মনোয়ারা হোসেন, লিটন মিয়া, সাজু, জাহ্ঙ্গাীর আলম, দিলোয়ার হোসেন দিলু, মন্জু প্রমুখ।

Sharing is caring!

Loading...
Open