তাহিরপুরে শুরু হয়েছে আমন ধাঁন কাটার উৎসব

নিজস্ব প্রতিনিধি:: তাহিরপুরে শুরু হয়েছে আমন ধাঁন কাটার ধূূম। আবার কোনো হাওরে ধান পাকা শুরু হয়েছে, কোনো-কোনো হাওরে বিস্তীর্ণ মাঠজুড়ে পাকা ধানের মৌ-মৌ গন্ধে সোনালী ধানের শীষ উত্তরের বাতাসে দোলনা দোলাচ্ছে। উপজেলার পূর্ব সীমান্ত উত্তর মুকসেদপুর থেকে পশ্চিমে বাগলী বীরেন্দ্রনগর পর্যন্ত ৩০ কিলোমিটার সীমান্তে ছোট-ছোট হাওরের ক্ষেত জুড়ে এখন স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদী আমন ধানের মৌ-মৌ সুবাতাস বইছে। নতুন ধান উঠবে কৃষকের গোলায় সেই স্বপ্নে চাষীদের মূখে ফুটে উঠছে হাসির ঝিলিক।

এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, ফসল ঘরে তুলতে দিনরাত মাঠে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন কৃষক। ধান কেটে বাড়িতে নিয়ে মাড়াই করার কাজে কৃষক-কৃষাণী ছেলে মেয়ে ব্যস্ত সময পার করছেন। অনুকুল আবহাওয়া, পোকার আক্রমন ও রোগ বালাই কম হওয়ায় অন্য বছেরের তুলনায় এবার ফলনও বেশী। তাই কৃষকদের মূখে হাসি ফুটেছে।

সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলা মূলতঃ বোর ফসল প্রধান এলাকা। উপজেলার সাত ইউনিয়নের মধ্যে ৪ ইউনিয়নের কিছু অংশে আমন ধান চাষাবাদ করা হয়। এলাকার স্থানীয় কৃষকদের তথ্য অনুযায়ী চলতি বছর উপজেলার বালিজুরী, বাদাঘাট, উত্তর বড়দল, উত্তরশ্রীপুর ও তাহিরপুর সদর ইউনিয়নে প্রায় ১০ হাজার একর জমিতে আমন ধান চাষাবাদ করা হয়েছে। তবে উপজেলার কৃষি অফিসের তথ্য অনুযায়ী তাহিরপুর উপজেলায় ৭ হাজার এক আমন জমি চাষাবাদ করা হয়েছে।

সরেজমিন উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়নের সীমান্ত গ্রাম রাজাই হাওরে গিয়ে দেখা যায় বিস্তীর্র্ণ হাওর জুড়ে বাতাসে-বাতাসে দোল খাচ্ছে পাকা ধান। সে সময় কথা হয় হাওরের কৃষক হেকমত আলীর সাথে তিনি জানান, আবহাওয়া ভাল থাকায় এবার তার ফলন ভাল হয়েছে, দু’এক দিনের মধ্যে তিনি ধান কাটা শুরু করবেন।

সীমান্ত পথ ধরে আরও কিছু দূর এগুনোর পর রজনী লাইন হাওরে গিয়ে দেখা হয় ওই গ্রামের কৃষক সিদ্দিক আলীর সাথে তিনি জানান, চলতি বছর তিনি স্বল্প মেয়াদী জাতের ধান চাষাবাদ করেননি অন্যান্য জাতের ধান চাষাবাদ করায় তার ধান পাকতে একটু দেরী হচ্ছে। তবে বিগত বছরের তুলনায় ফলন অনেক বেশী হয়েছে।

তাহিরপুর উপজেলা কৃষি অফিসের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা আবুল হাসান জানান, ব্রি-৩৩ ও বিণা-৭ এ দু‘টি জাত স্বল্প মেয়াদী । অন্যান্য জাতের ধান যেখানে পাকতে সময় লাগে ১৪০ থেকে ১৪৫ দিন সেখানে ব্রি-৩৩ ও বিণা-৭, পাকতে সময় লাগে ১০০ থেকে ১১০ দিন ।এবারে কৃষকরা ব্রি-৩৩ ও বিণা-৭ জাতের ধান বেশী রোপন করেছে।

বাদাঘাট ইউনিয়নের দক্ষিণ মুকসেদপুর গ্রামের গ্রামের কৃষক কালাচান জানান, চলতি আমন মৌসুমে তিনি ৩ বিঘা জমিতে আগাম জাতের আমন ধান রোপন করছেন ফলনও ভাল হয়েছে সেই সাথে অন্যান্য জাতের চাইতে আর ১০ দিন আগে ধান কেটেছেন।
তাহিরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুহাম্মদ আব্দুছ সালাম বলেন, এবছর তাহিরপুরে আমনের বাম্পার ফলন হয়েছে।আগাম জাতের ধান গুলো কাটা মাড়াই শুরু হয়েছে। অন্যান্য জাতের ধানগুলো আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই কাটা শুরু হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open