রাজনগরে এনজিও কর্মী গণধর্ষণের ঘটনায় দুই ধর্ষক আটক

নিজস্ব প্রতিনিধি:: মৌলভীবাজারের রাজনগরে এনজিও কর্মী যুবতীকে (২৩) গণধর্ষণের ঘটনায় ২ ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এসময় ধর্ষণের কাজে ব্যবহৃত সিএনজি অটোরিক্সাটিও (মৌলভীবাজার-ঠ ১১-৬৮১৬) উদ্ধার করা হয়েছে।

আজ (২৩শে নভেম্বর) বৃহস্পতিবার অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ জানায়- রাজনগর উপজেলার মনসুরনগর ইউনিয়নের বাসিন্দা এক এনজিও কর্মী যুবতী (২৩) গত সোমবার সন্ধ্যায় কর্মস্থল মৌলভীবাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় শহরের চাঁদনীঘাট ব্রীজের উপর থেকে একটি সিএনজি অটোরিক্সায় উঠে ওই যুবতী মৌলভীবাজার-কুলাউড়া সড়কের কদমহাটা বাজারে নামতে চাইলে অটোরিক্সায় থাকা দুই যুবক তার মুখ চেপে ধরে নামতে বাঁধা দেয়। পরে চালক অটোরিক্সাটি চালিয়ে পার্শ্ববর্তী বকসিকোনা গ্রামের শেষ প্রান্তে যায়। সেখানে গ্রামের আব্দুল লতিফ নামে এক ব্যক্তির বাড়ির পুকুর পাড়ে নিয়ে তাকে ওই চালকসহ তিন জন মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। সেখান থেকে দুই যুবক তাকে মহলাল এলাকায় নিয়ে ছেড়ে দেয়। এসময় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যার হাসপাতালে পাঠায়।

এঘটনায় গত ২১শে নভেম্বর মঙ্গলবার রাতে ভিকটিম বাদী হয়ে অজ্ঞাত তিনজনকে আসামী করে রাজনগর থানায় মামলা (নং ২১(১১)১৭) করলে বৃহস্পতিবার ভোর ৪ টার দিকে রাজনগর থানার ওসি (তদন্ত) আবু তাহের ও এসআই রাজীব হোসেনের নের্তৃত্বে একদল পুলিশ উপজেলার দক্ষিণ চাটুরা গ্রামের চেরাগ মিয়ার ছেলে মোতালিব মিয়াকে (২৩) পুলিশ গ্রেফতার করে। তার স্বীকারুক্তিতে একই উপজেলার টগরপুর গ্রামের মৃত কদর মিয়ার ছেলে গিয়াস মিয়াকে (৩৪) গ্রেফতার করা হয়।

এব্যাপারে রাজনগর থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যামল বণিক বলেন, পুলিশ আসামীদের চিহ্নিত করে ২ জনকে গ্রেফতার করেছে। ব্যবহৃত সিএনজি অটোরিক্সাটি উদ্ধার করে থানায় রাখা হয়েছে। তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open