ওসমানীনগরে হীরা হত্যা মামলার আসামী নোমান কারাগারে

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: ওসমানীনগরের আলোচিত হীরা হত্যা মামলার আসামী সৈয়দ নোমান রশীদকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

বুধবার ওসমানীনগর ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পন করলে বিচারক তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

জানা যায়, সিলেটর ওসমানীনগর থানার আলোচিত হীরা মিয়া হত্যা মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী নোমান ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলেন। তবে স্থানীয় গ্রামবাসী দাবি করেন প্রভাবশালী ব্যক্তি নোমান রশীদ প্রকাশ্য দিবালোকে চলাফেরা করেছেন। পুলিশের নাকের ডগা দিয়ে তিনি যাতায়াত করলেও রহস্যজনক কারনে তাকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ।
হত্যা মামলার এই আসামী তার অর্থ আর প্রতিপত্তির জোরে প্রভাব বিস্তার করে প্রশাসনকে নিজের আয়ত্বে নিয়েছেন বলে অনেকে অভিযোগ করেন।

আদালত ও পুলিশ সূত্র জানায়, গত ১০ই জুন ওসমানীনগরের সৈয়দ মান্দারোকা গ্রামে মসজিদকে কেন্দ্র করে দুদল গ্রামবাসীর সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এঘটনায় গুরুতর আহত হীরা মিয়া চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় সিলেট শহরের ওয়েসিস হাসপাতালে মারা যান।

এঘটনায় সৈয়দ নোমান রশীদসহ ১৮জনকে অভিযুক্ত করে ওসমানীনগর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং ৯০৯) ১৩/৬/২০১৭। ঘটনার পর থেকে মামলার আসামীর এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গেলেও নোমান তার সিলেট শহরের বাসা থেকে নানা তৎপরতা চালাতে থাকেন। কিন্তু তাকে আটক করতে অজ্ঞাত কারনে পুলিশ তার বাসায় কোন দিনই অভিযান চালায়নি।

হত্যা মামলা ছাড়াও তার বিরুদ্ধে আরও ৩টি মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে। এমনকি সিলেট শহরেও তার বিরুদ্ধে হামলা ও মারামারির অভিযোগ রয়েছে। তার ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায়না।

নিহত হীরা মিয়ার ভাই মাজন মিয়া বলেন, আজ নোমানসহ তিনজন আদালতে আত্মসমর্পন করেছে। নোমন বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি দিয়ে আসছিল। সে তার সিলেট শহরের বাসায় বসবাস করলেও পুলিশ কোনদিন তাকে ধরতে যায়নি। বুঝেন তো প্রভাবশালীরা তাদের পক্ষে। আর পুলিশও তাদের কথা শুনে।

Sharing is caring!

Loading...
Open