কুলাউড়ায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা,দপ্তরী চাকুরীচ্যুত

নিজস্ব প্রতিনিধি:: মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাও ইউনিয়নের বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষনের চেষ্টা করেছে একই প্রতিষ্ঠানের দপ্তরী। এই অভিযোগে সুমন বেগ (৩০) নামের ঐ দপ্তরীকে বিদ্যালয়ের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। সে একই ইউনিয়নের বিজলী গ্রামের জব্বার বেগের ছেলে।

রবিবার (১৯শে নভেম্বর) দুপুরে ইউনিয়নের বিজলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এই ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, উপজেলার বিজলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রতিদিনের মতো স্কুলে যায় ৪র্থ শ্রেনীর ওই ছাত্রী। স্কুলে অনেকসময় শিক্ষকের অনুপস্থিতিতে ওই দপ্তরী বাচ্চাদের ক্লাস নেয়। রবিবার দুপুরে ক্লাস করার এক পর্যায়ে দপ্তরী সুমন ওই ছাত্রীকে ঝাড়– আনতে ২য় তলায় পাঠায়। এসময় ঝাড়– আনতে ছাত্রীটি ২য় তলায় গেলে পিছনে পিছনে যায় সুমন। এক পর্যায়ে একা পেয়ে ছাত্রীর মুখে এবং গলায় টিপে ধরে সে। জোরপূর্বক বালৎকারের চেষ্টা করতে থাকে। কিন্তু নাছোড়বান্দা ছাত্রী ভীত সম্ভ্রস্ত হয়ে চিৎকার চেঁচামেচি করে দৌড়ে নিচ তলায় এসে সবাইকে বিষয়টি বলে। পরে স্কুলের শিক্ষক, স্থানীয় লোকদের মধ্যে বিষয়টি জানাজানি হলে দপ্তরী সুমনকে প্রথমে বেঁধে রাখা হয়। এক পর্যায়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে বিষয়টি অবহিত করা হয়। ইউএনও ছুটিতে থাকায় উপস্থিত হতে পারেননি। তবে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেন। পরে অভিযোগের প্রেক্ষিতে দপ্তরী সুমনকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে।

এদিকে মেয়েটির বাবা বলেন, আমার মেয়েকে ধর্ষনের চেষ্টায় মুখ চেঁপে ধরে, গলা টিপে ধরে। একপর্যায়ে সে চিৎকার করে পালাতে সক্ষম হয়।

এ বিষয়ে টিলাগাও ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মালিক জানান, ঘটনাটি যেভাবে প্রকাশ পেয়েছে, ঘটনাটি সেভাবে ঘটেনি। দপ্তরী সুমন স্বেচ্ছায় তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার চৌধুরী মো. গোলাম রাব্বী বলেন, আমাকে স্কুল গভর্ণিং বডির সভাপতি এবং স্থানীয় চেয়ারম্যান বিষয়টি অবহিত করেছেন। তারা জানান বিষয়টি ইভটিজিং। এ ব্যাপারে আমাকে স্কুল গভর্ণিং বডির সভাপতি এবং স্থানীয় চেয়ারম্যান বিষয়টি অবহিত করেছেন। তারা জানান বিষয়টি ইভটিজিং। আমি ছুটিতে থাকায় স্বশরীরে উপস্থিত হতে পারিনি। তবে উনাদেরকে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছি।

Sharing is caring!

Loading...
Open