বিশ্বনাথে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক কর্মকর্তা ও গ্রাহকের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

নিজস্ব প্রতিনিধি:: বিশ্বনাথে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেডের সাবেক তিন কর্মকর্তা ও দুই গ্রাহকের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা (নম্বর ৫ ও ৬) দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গত বৃহস্পতিবার দুদকের বরিশাল সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপসহকারী পরিচালক রণজিৎ কুমার কর্মকার বাদি হয়ে বিশ্বনাথ থানায় মামলা দুটি করেন।

মামলার আসামিরা হলেন- স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেড, বিশ্বনাথ এসএমই/কৃষি শাখার সাবেক ম্যানেজার, সুবিদবাজারের লাভলী রোডস্থ নির্ঝর-৬ এর মৃত আবদুল ওয়াদুদের পুত্র হোসেন আহমদ, সাবেক ক্যাশ ইনচার্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার কাজীপাড়া গ্রামের মৃত রকিবউদ্দিন আহমদের পুত্র সালাহউদ্দিন আহমেদ, সাবেক কর্মকর্তা, দক্ষিণ সুরমার বাহুবল সড়কে পাঁচপাড়া কটেজের বশির আহমদের পুত্র রাকিব আহমদ, ব্যাংকের গ্রাহক বিশ্বনাথ উপজেলার কালীজুরি গ্রামের সাজ্জাদুর রহমানের পুত্র মাহমুদুল কায়েস ও হবিগঞ্জের বানিয়াচঙ্গ উপজেলার শাখার মহল্লার মোফাজ্জল হোসেন বিশ্বাসের পুত্র মোয়াজ্জেম হোসেন বিশ্বাস।

মামলায় ব্যাংকের সাবেক ম্যানেজার হোসেন আহমদ ও সাবেক ক্যাশ ইনচার্জ সালাহউদ্দিন আহমেদকে আসামি করা হয়েছে।

৫ নম্বর মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেড, বিশ্বনাথ এসএমই/কৃষি শাখার সাবেক ম্যানেজার হোসেন আহমদ, সাবেক ক্যাশ ইনচার্জ সালাহউদ্দিন আহমেদ ও সাবেক কর্মকর্তা রাকিব আহমদ বিশ্বনাথ শাখায় কর্মরত থাকাবস্থায় ক্ষমতার অপব্যবহার করে ব্যাংকের গ্রাহক মাহমুদুল কায়েসের সহযোগিতায় ৪৭ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা এবং মোয়াজ্জেম হোসেন বিশ্বাসের সহযোগিতায় ৫৫ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেন।

অপর মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ব্যাংকের একই শাখায় কর্মরত থাকাবস্থায় সাবেক ম্যানেজার হোসেন আহমদ ও সাবেক ক্যাশ ইনচার্জ সালাহউদ্দিন আহমদ গ্রাহকের অজান্তে স্বাক্ষর জাল করে তার নামে চেক বই ইস্যু করে তিন লক্ষ টাকা ও গ্রাহকের স্বাক্ষর জাল করে পে-অর্ডার ইস্যুপূর্বক পাঁচ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেন।

বিশ্বনাথ থানার ওসি শামসুদ্দোহা পিপিএম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open