এমপি কেয়া চৌধুরীর উপর হামলা নারী নেতৃত্বকে অপমানিত করার শামিল

বাংলাদেশ নাগরিক অধিকার বাস্তাবায়ন পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সিলেট সাংবাদিক কল্যাণ সংস্থার সভাপতি মো. ইসলাম আলী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ দেশের শীর্ষস্থানীয় সকল রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ যখন নারীর ক্ষমতায়নে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করছেন। নারী ক্ষমতায়নের মাধ্যমে দেশ আজ মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে বিশ্বের মাঝে তুলে ধরছেন। সেই মূহুর্তে পুণ্যভূমি সিলেটের কৃতিসন্তান, পরিচ্ছন্ন নারী রাজনীতিবিদ, অবহেলিত নারী সমাজের দাবী আদায়ে যিনি সবসময় কাজ করে যাচ্ছেন নারী নেত্রী কেয়া চৌধুরীর উপর হবিগঞ্জে প্রকাশ্যে দিবালোকে নগ্ন হামলা চালানো হয়েছে। এই নগ্ন হামলার মাধ্যমে নারী নেতৃত্বকে অপমানিত করা হয়েছে। সিলেটের সামাজিক সংগঠন নারী কল্যাণ সংস্থার নেতৃবৃন্দরা আজ যেভাবে নারীনেত্রী কেয়া চৌধুরীর উপর হামলার প্রতিবাদে সিলেটের কোর্ট পয়েন্টে এসে জড়ো হয়ে প্রতিবাদের মাধ্যমে প্রমাণ করেছেন সিলেটের নারী সমাজ তাঁর পাশে রয়েছে।

শনিবার বেলা ১১ টায় নগরীর কোর্ট পয়েন্টে কেয়া চৌধুরীর এমপির উপর হামলার প্রতিবাদে সিলেট নারী কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধনে নারী কল্যাণ সংস্থার সভানেত্রী স্বপ্না বেগমের সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক শায়লা আক্তার এলির সঞ্চালনায় প্রধান অথিতির বক্তব্যে মো. ইসলাম আলী এ কথা গুলো বলেন।

সভাপতির বক্তব্যে সিলেট নারী কল্যাণ সংস্থার সভানেত্রী স্বপ্না বেগম বলেন, আমাদের নবগঠিত সংগঠন অবহেলিত পিছিয়ে পড়া নারীদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। নারীদের উপর নির্যাতন নিপিড়নের বিরুদ্ধে আমরা কখনো আপোষ করব না। আমরা অবিলম্বে প্রশাসনের কাছে দাবি জানাচ্ছি নারী নেত্রী কেয়া চৌধুরী এমপির উপর যারা হামলা চালিয়েছে তাদের গ্রেপ্তারের মাধ্যমে আইনের আওতায় আনা হোক।

মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জাগো সিলেট আন্দোলনের সাংগঠনিক সম্পাদক লোকমান হোসেন, সংবাদপত্র হকার্স সমবায় সমিতির সহসভাপতি মামুন হোসেন, জেলা ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের সহপাঠাগার সম্পাদক মুফতি আনিসুর রহমান তিতাস, সামাজিক ছাত্র আন্দোলনের সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. হিলাল উদ্দিন শিপু, কোষাধ্যক্ষ শান্তনু চৌধুরী শান্ত, ছাত্রনেতা পৃথম দাশ, ভূমিহীন সমিতির আহবায়ক আহমদ আলী, হযরত শাহজালাল (রহ.) স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার মনির হোসেন, নারী কল্যাণ সংস্থার সদস্য মঞ্জু রাণী রায়, নাসরিন বেগম, তাসলিমা বেগম, লিজা বেগম, মুক্তা বেগম, মুন্নি বেগম, সেলিনা বেগম, সালমা আক্তার, রজবুনেচা, নার্গিস বেগম, শেলী বেগম, শিরিন শারমীন, নাজমা বেগম, রুজিনা বেগম, জোৎনা বেগম, আনজুমা বেগম, রুনাম বেগম, নাজু বেগম, মনোয়ারা বেগম, মিনারা বেগম, হালিমা বেগম, ইমান আলী, রাহেলা বেগম প্রমুখ। – বিজ্ঞপ্তি

Open