সরকারি অর্থের অপব্যবহার করে ব্যক্তি স্বার্থ চরিতার্থ করার অভিযোগ

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: সরকারি অর্থের অপব্যবহার করে ব্যক্তি স্বার্থ চরিতার্থ করার অভিযোগ উঠেছে সিটি কর্পোরেশনের (রাসিক) কার্য সহকারী সানোয়ারুল হক ছবির বিরুদ্ধে। গতকাল রোববার সকালে নগরীর একটি রেস্তোরাঁয় সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন ভুক্তভোগীরা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নেহরাজ মাহমুদ। তিনি নগরীর হেতেমখাঁ কারিগর পাড়ায় অবস্থিত ডা. জুবাইদা খাতুন নার্সিং ইন্সটিটিউটের পরিচালক।

তার অভিযোগ, সানোয়ারুল হক ব্যক্তি স্বার্থে জনকল্যাণে নির্মিত নার্সিং ইন্সটিটিউট ভেঙে ফেলার ষড়যন্ত্র করছেন। ইনস্টিটিউটের পেছনে তার চারতলা বিলাশবহুল বাড়ি। সেই বাড়ি পর্যন্ত ৫০০ মিটার ১৮ ফিট প্রশস্ত শাখা রাস্তা তৈরি করছে সিটি কর্পোরেশন। নিজ স্বার্থেই ক্ষমতার অপব্যবহার করে এ প্রকল্প হাতে নিয়েছেন তিনি। কিন্তু ওই রাস্তাটি যে রাস্তা থেকে এসেছে সেটি ১২ ফিট প্রস্থ। নতুন এ রাস্তা মাস্টার প্ল্যানেও নেই।

লিখিত বক্তব্যে নেহরাজ মাহমুদ বলেন, রাজশাহী জেলা প্রশাসকের দপ্তর থেকে নোটিশ পাবার পর দুটি লিখিত আপত্তি জানান তারা। কিন্তু তাতেও সাড়া মেলেনি। তাদের বক্তব্য না নিয়ে মনগড়া প্রতিবেদন দিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। এতেই সানোয়ারুল ইসলামের যোগসাজসের অভিযোগ করেন তিনি।

কথিত এ প্রকল্পের বাকি অংশে হত দরিদ্র মানুষের বসবাস। ওই প্রকল্পের কারণে তাদের মাথা গোঁজার ঠাঁইটুকুও থাকবেনা। সানোয়ারুল হককে দুর্নীতিবাজ উল্লেখ করে তার সম্পদ অর্জনের বিষয়টি খতিয়ে দেখতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানানো হয় সংবাদ সম্মেলন থেকে। একই সঙ্গে এ প্রকল্প বাতিলেরও দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, মনজুর হোসেন, আফজাল হোসেন, আমিরুল হোসেন, আসাদুজ্জামান, আরিফ হোসেন, সাইদুজ্জামানসহ অন্যান্য ওয়ারিশগণ।

Open