গোয়াইনঘাটে কিশোর নির্যাতনের ঘটনায় মামলা, ইসাবর কারাগারে

নিজস্ব প্রতিনিধি:: সিলেট গোয়াইনঘাট উপজেলার মানাউড়া পূর্বপাড়া গ্রামের মৃত ইয়াছিন আলীর ছেলে সুহেলকে মোবাইল চুরির মিথ্যা অভিযোগে গাছের সঙ্গে বেধেঁ নির্যাতনের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নির্যাতনের শিকার সুহেল’র মা বেবাই বেগম বাদী হয়ে ইসবর আলীকে প্রধান আসামী করে ৮ জনের নাম উল্লেখ করে সোমবার রাতে গোয়াইনঘাট থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলার প্রধান আসামী ইসবর আলীকে আটক করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।
এ ঘটনায় সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) আবুল হাসনাত খানকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে পুলিশ। তদন্তে দায়িত্ব অবহেলার কারণে সোহেলের বিরুদ্ধে দায়ের করা মাদক মামলার বাদী সালুটিকর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক সুশংকর পালকে প্রত্যাহার করে জেলা পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।

গত ২৯শে অক্টোবর গোয়াইনঘাট উপজেলার মানাউড়া পূর্বপাড়া গ্রামে পূর্ব বিরোধের জের ধরে মোবাইল চুরির মিথ্যা অপবাদ দিয়ে সোহেল নামক এক কিশোরকে গাছের সঙ্গে দুই হাত ও পা বেধেঁ নির্যাতন করা হয়েছে। নির্যাতনের পর এক পর্যায়ে ওই কিশোরকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এরপর তার বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে মাদকের মামলা দিয়ে জেল হাজতে প্রেরণ করে। বর্তমানে সে পুলিশের দায়ের করা মাদকের মামলায় জেল হাজতে রয়েছে।

থানার ওসি (তদন্ত) হিল্লোল রায় এসআই সুশংকর পালকে প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, কিশোর নির্যাতনের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার প্রধান আসামী ইসবর আলীকে আটক করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। বাকী আসামীদের আটক করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে তিনি জানান।

Sharing is caring!

Loading...
Open