চিহ্নিত কোন চাঁদাবাজ,সন্ত্রাসী আ’লীগের সদস্য হতে পারবেনা-মৌলভীবাজারে ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিনিধি:: আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক,সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিএনপিকে উদ্যেশ্য করে বলেছেন, মরা গাঙ্গে জোয়ার আসেনা। বিএনপি আন্দোলন করবে করবে বলে আর আন্দোলনে আসবেনা।

খালেদা জিয়াকে উদ্যেশ্য করে বলেন, উনার কথায় কথায় কান্নাকাটি। কখনো খালেদা জিয়া আবার কখনো ফখরুল ইসলাম কাঁদেন। আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে ফান্দে পড়িয়া বগা কান্দে রে।

খালেদা রাস্থা-ঘাট বন্ধ করে দিয়েছেন উল্যেখ করে তিনি বলেন, ঢাকা থেকে মেঘনা ৩ ঘন্টা যানজট। এসব যানজট তাদের নিজেদের সৃষ্টি।

মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন মন্ত্রী। সড়ক ও সেতু মন্ত্রী বলেন, মৌলভীবাজারে অনেক ত্যাগী নেতা-কর্মী আজ আমাদের মাঝে নেই। এই সম্মেলনে আমি তাদের শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি।

স্থানীয় নেতা-কর্মীদের উদ্যেশ্যে বলেন, সদস্য সংগ্রহ করেছেন? জবাবে ১২টি সদস্য সংগ্রহ বই তার কাছে নিয়ে আসা হয়। কঠোর ভাষায় নেতা-কর্মীদের উদ্যেশ্যে জানতে চান, ১২টি বই নিয়ে এসেছেন এটা আমাদের জন্য অনেক লজ্জার বিষয়। ১২শ বই আসলোনা কেন?

ওবায়দুল কাদের বলেন, মহিলা ও তরুনরাই আ’লীগের বিজয়ের প্রধান হাতিয়ার। মহিলাদের প্রশাধনীর মত ঘরে সাজাইয়া রাখবেন, আবার আপনী নৌকা করেন। কিন্তু মহিলাদের নৌকা করতে বলবেনা? কাজেই মহিলাদের গুরুত্ব দেবেন।

তিনি বলেন, চিহ্নিত কোন চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী আ’লীগের সদস্য হতে পারবেনা। চিহ্নিত কোন স্বামপ্রদায়িক ও স্বাধীনতা বিরোধী আ’লীগের সদস্য হতে পারবেনা।

তিনি প্রধান মন্ত্রীর উন্নয়নের ধারাবাহিতা উল্যেখ করে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের উন্নয়ন করছেন। শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু তৈরি করতে পারেন। তাহলে ১৫ হাজার কোটি টাকা ব্যয় করে আপনাদের ঢাকা-সিলেট মহসড়ক সংস্কার করতে পারবেন। আপনাদের কাজ হচ্ছে জনগণের সঙ্গে ভাল ব্যবহার করা।

তিনি নেতা-কমীদের উদ্যেশ্যে বলেন, পকেট কমিটি করবেননা। দল ভারী করার জন্য দলে খারাপ লোক আনবেননা।

বক্তব্যে জেলা আ’লীগের নের্তৃবৃন্দের কাছে জানতে চান কত বছর পর সম্মেলন হচ্ছে। জবাবে স্থানীয় নের্তৃবৃন্দ বলেন ১২ বছর পর। তখন তিনি বলেন, ১২ বছরে যদি চার বার সম্মেলন হতো তাহলে চার সেট নের্তৃত্ব জন্ম নিতো।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আ’লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার পৃষ্ঠপোষকতায় প্রধানমন্ত্রীর উপর বারবার হামলা চালানো হয়েছে। এ পর্যন্ত ১৯ বার প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া তিন মাস পর লন্ডন থেকে এসেছেন। বেগম খালেদা জিয়া আপনার প্রভু পাকিস্থানের সাথে যত গোপন বৈঠক করেন না কেন এতে কোন কাজ হবেনা।

তিনি বলেন, উনারা আইনে বিশ্বাসী নন,কাজেও বিশ্বাসী নন। তবে ষড়যন্ত্রে বিশ্বাসী। ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে এই সংবিধান। আগামী সংসদ নির্বাচন এই সংবিধান অনুযায়ী হবে।

বিএনপিকে উদ্যেশ্য করে হানিফ বলেন, আপনারা নির্বাচনে আসেন। এসে দেখেন মানুষ আপনাদের সাথে আছে কিনা? তিনি বলেন, দেশের কয়েকটি জেলা আ’লীগের সম্মেলনে আমার যাবার সুযোগ হয়েছে। আজ মৌলভীবাজারে এসে এই সম্মেলন দেখে খুবই ভাল লেগেছে।

তিনি বলেন, আমাদের ক্ষমতায় আসার মূল প্রান ভমরাই হলো তৃনমলের নেতা-কর্মীরা। তিনি মৌলভীবাজার আ’লীগের ঘাটি উল্যেখ করে বলেন, সেই ১৯৭৯ সাল থেকেই আমরা বারবার বিজয়ী হয়েছি মৌলভীবাজার জেলায়। এই মৌলভীবাজার আমাদের এক শক্ত ঘাটি।

বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধির কথা উল্যেখ করে হানিফ বলেন, দেশে বিদ্যুৎ ১৬ হাজার মেঘাওয়াট ছাড়িয়ে গিয়ে উৎপাদন আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। এরকম উন্নয়নের ধারাবাহিকতা থাকলে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ একটি মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে দলের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হাসান বলেন, খালেদা জিয়া কান্নাকাটি করে বলছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে তার সরকারের আমলে নাকি আদালতে যেতে হয়নি। তিনি এখন ভাঙ্গা পা দিয়ে দেশ কিভাবে চালাবেন?

মৌলভীবাজার কেন্দ্রিয় শহিদ মিনারে বেলা ১টায় শুরু হয় জেলা আ’লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। এর আগে জেলার ৭টি উপজেলা থেকে হাজার হাজার নেতা-কর্মীরা মিছিল সহকারে সভা মঞ্চে এসে পৌছান।

আ’লীগের জেলা সভাপতি ও সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহিদ এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমদ-এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ, সংসদের হুইপ মোঃ শাহাব উদ্দিন আহমদ, সাবেক এমপি মোঃ শফিকুর রহমান, কেন্দ্রিয় আ’লীগের সদস্য অধ্যাপক রফিকুর রহমান, সিলেট মহানগর আ’লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, স্থানীয় সংসদ সদস্য সৈয়দা সায়রা মহসিন, কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এএসএম জাকির হোসাইনসহ অনেকেই।

Sharing is caring!

Loading...
Open