শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপে বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জবাসীর দুর্ভোগ লাঘব হচ্ছে

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: বন্যার পানিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সড়ক। এক ঘণ্টার রাস্তা পেরোতে হয় তিন ঘণ্টায়। এমন দুর্ভোগ নিত্যসঙ্গী ছিল গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার উপজেলাবাসীর। অবশেষে সেই দুর্ভোগ লাঘব হচ্ছে দুই উপজেলার মানুষের।

শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপে মেরামত হতে যাচ্ছে ভাঙা সড়ক। এরই মধ্যে রাস্তা সংস্কারে প্রায় সোয়া ২শ’ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। আগামী নভেম্বর মাসে শুরু হবে এ দুই উপজেলার সড়ক সংস্কার কাজ।

সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগ সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী উৎপল সামন্ত এমন তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, সোমবার সিলেট-গোলাপগঞ্জ-চারখাই-জকিগঞ্জ সড়ক সংস্কারে ১৭২ কোটি টাকার কাজের দরপত্র গ্রহণ করা হবে। চারখাই-বিয়ানীবাজার-বারইগ্রাম সড়কের দু’টি টেন্ডারে ১২ কোটি ও ১৯ কোটি টাকার সংস্কার কাজের টেন্ডার আহ্বান করা হবে। এছাড়া গোলাপগঞ্জ-ঢাকা দক্ষিণ ভাদেশ্বর সড়কে ১৪ কিলোমিটারের জন্য ২০ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। এই কাজও অচিরেই শুরু হবে।

তিনি বলেন, এই দুই উপজেলার সড়ক সংস্কার হলে পার্শ্ববর্তী জকিগঞ্জ ও মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলা এবং জুড়ি, কুলাউড়া উপজেলার মানুষও উপকৃত হবেন।

এ বছর গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজারের বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শনের পর ৭ই জুলাই প্রকৌশলীদের নিয়ে সিলেট সার্কিট হাউসে বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

ওই বৈঠকে তিনি নিজের নির্বাচনী এলাকার জরাজীর্ণ সড়কে মানুষের চলাচলে দুর্ভোগের কথা তুলে ধরে জরাজীর্ণ এসব সড়ক সংস্কারের জন্য সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রকৌশলীদের নির্দেশ দেন।

পরে ১০ই জুলাই শিক্ষামন্ত্রী নিজেই সড়ক সংস্কারের জন্য সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেন। ১৯শে অক্টোবর সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ব্যবস্থা নিতে সচিবকে নির্দেশ দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে অচিরেই সড়ক সংস্কার কাজ শুরু হতে যাচ্ছে, জানায় সওজ সূত্র।

এ বছর বন্যায় গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজারসহ সিলেটের বিভিন্ন উপজেলা বন্যা কবলিত হয়। বন্যার পানিতে নিমজ্জিত হয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয় সড়ক। যে কারণে এই দুই উপজেলা সড়ক যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। এতে ভোগান্তিতে পড়েন এই দুই উপজেলাসহ পার্শ্ববর্তী উপজেলা জকিগঞ্জ, কানাইঘাট, জুড়ি, বড়লেখা ও কুলাউড়া উপজেলার লোকজন। অবশেষে শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপে সেই দুর্ভোগ লাঘব হচ্ছে-এমনটি মনে করেন স্থানীয়রা।

Sharing is caring!

Loading...
Open