বিশ্বনাথে পূর্ব বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে মহিলা-শিশু’সহ আহত ৩০ জন

নিজস্ব প্রতিনিধি:: সিলেটের বিশ্বনাথে উপজেলার বন্ধুয়া গ্রামে শুক্রবার সকালে পূর্ব বিরোধের জের ধরে নোয়ার আলী গং ও ঈর্শ্বাদ আলী গংদের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটনা ঘটেছে।

সংঘর্ষে মহিলা-শিশু’সহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এলাকাবাসীর হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে।

সংঘর্ষে উভয় পক্ষে আহতরা হলেন- নোয়াব আলী (৭০), পিয়ারা বেগম (৫০), আমির আলী (৩০), আব্দুল কাদির (২০), আলকাছ মিয়া (২৫), কটন মিয়া (৪০), নূর উদ্দিন (৩৫), আব্দুল লতিফ (৪০), গেদা মিয়া (৩০), মক্তার আলী (৪০), রুকিয়া বেগম (৩০), খয়রুন নেছা (২৬), আনছার আলী (১৮), শিফা বেগম (৩০), দুদু মিয়া (৪৫), বাছা মিয়া (৩০), ঝর্ণা বেগম (১০), রুমি বেগম (১০), তাজির আলী (৩৫), এমরান মিয়া (১৫), মনফর আলী (৫০), বিরু মিয়া (৪০) প্রমুখ।

গুরুতর আহতরা সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে নোয়াব আলী ও ঈর্শ্বাদ আলী গংদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। উভয় পক্ষে রয়েছে পাল্টাপাল্টি মামলা। এরই জের ধরে শুক্রবার সকালে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।

এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। প্রায় আধাঘন্টা ব্যাপী সংঘর্ষ চলে। এতে মহিলা ও শিশুসহ উভয় পক্ষের অন্তত ২৫ জন আহত হন।

খবর পেয়ে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে অনেক চেষ্ঠা চালিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত উভয় পক্ষ মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

এব্যাপারে নোয়াব আলী পক্ষের আবদুল মতিন বলেন, আজ (শুক্রবার) সকালে আবদুল কাদির মাছ মারার জন্য বাড়ি থেকে বের হলে তার (কাদির) ওপর হামলা করেন ইর্শ্বাদ আলী পক্ষের লোকজন।

এসময় কাদিরের চিৎকার শুনে আমরা তাকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে তারা আমাদের ওপরও হামলা চালায়। এতে আমাদের পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

ইর্শ্বাদ আলীর ভাতিজা ফরিদ মিয়া বলেন, আজ (শুক্রবার) সকালে দুদু মিয়া ও তার পুত্র এমরান ঘাস (গবাদি পশুর খাদ্য) তোলার জন্য বাড়ি থেকে বের হলে তাদের ওপর হামলা করেন নোয়াব আলী পক্ষের লোকজন।

এসময় তাদের চিৎকার শুনে আমরা এগিয়ে গেলে তারা আমাদের ওপর হামলা করে। এতে আমাদের কয়েক জন আহত হয়েছেন।

পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে দাবি করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) শামসুদ্দোহা পিপিএম বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open