নিরাপত্তা চেয়ে ঢাকায় সংবাদ সম্মেলন করলেন সিলেটের দম্পতি

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: শাহীন নুরজাহান চৌধুরী ও তার স্বামী মো. শফিউল ইসলাম হিরো সিলেটের কোতোয়ালির থানা এলাকার বাসিন্দা। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে নিরাপত্তা চেয়ে সংবাদ সম্মেলনে করেছেন।

নুরজাহান বলেন, হামলা এবং তিন ও তার স্বামীকে অপহরণের পর মামলা করলে ক্ষিপ্ত হয়ে আসামিরা প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে বলে তারা পালিয়ে এখন ঢাকায় রয়েছেন।এই দম্পতির এক ছেলে ও এক মেয়ে যুক্তরাজ্যে রয়েছেন। তাদের বাড়িটা দখল করার জন্য সন্ত্রাসী বাহিনী তাদের পেছনে লেগেছে বলে শফিউলের অভিযোগ।

নুরজাহান বলেন, এ বছরের জানুয়ারি মাসে আম্বরখানার দোকানে এসে সন্ত্রাসীরা হামলা চালায় এবং একশ টাকা তিনটি নন-জুডিশিয়াল খালি স্ট্যাম্পে ও ব্যাংকের একটি চেকের পাতায় পাঁচ লাখ টাকা লিখে নেয়। এরপর তারা ৬ই জুন ও ৬ই জুলাই বাড়িতে ঢুকে আসবাবপত্র লুট করে নিয়ে যায় বলে জানান তিনি।

তখন আখতার হোসেন, গুলজার, ফখরুল ইসলাম, আব্দুল আহাদ, সমশেদ আলী, সম্প্রাট, রাজু ও শাকিল নামে স্থানীয়দের বিরুদ্ধে মামলা করেন এই দম্পতি।মামলার পর হামলাকারীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ২৫শে জুলাই বিকালে নুরজাহান ও শফিউলকে তুলে নিয়ে যায় বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়।

নুরজাহান বলেন, “তারা জোর করে ওকালতনামা ও স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়। আইনজীবীর যোগসাজশে মামলা প্রত্যাহারের আবেদনও করায়।”এরপর শফিউল ও নুরজাহান ছাড়া পেলেও আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য পিবিআইকে নির্দেশ দেয়।

নুরজাহান বলেন, “আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করলে তারা আরও ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদের হুমকি দিচ্ছে।”পরোয়ানা জারির পরও সিলেট কোতোয়ালি থানা পুলিশ আসামিদের গ্রেপ্তারে সময়ক্ষেপণ করছে বলে নুরজাহানের অভিযোগ।

নুরজাহানের অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে সিলেট কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নুরে আলম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “উনারা আমাদের কাছে আসতে পারতেন।”“বিষয়টি আমার নলেজে কম আছে। তবে এখন বিষয়টি দেখব,” বলে জানান তিনি।

Sharing is caring!

Loading...
Open