গোয়াইনঘাটে চা শ্রমিকের হাতে যুবক খুন

নিজস্ব প্রতিনিধি:: সিলেটের গোয়াইনঘাটে চা শ্রমিকের হাতে এক যুবক খুন হয়েছে। উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের গুলনি চা বাগানে গরু চড়াতে এসে ঐ যুবক খুন হন। নিহত যুবক ফতেহপুর ইউনিয়নের রাজার বাগান (ফতেহপুর ৩য় খণ্ড) গ্রামের নুর হোসেনের ছেলে আলী হোসেন (২৬)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়- গত বৃহস্পতিবার (১২ই অক্টোবর) ২টার দিকে গুলনি চা বাগানের ভিতর স্থানীয় বাসিন্দা আলী হোসেনের ৪টি গরু প্রবেশ করে। গরুগুলি বাগানের ভিতরে রোপায়িত বিভিন্ন জাতের চারা বিনষ্ট করছিল।

খবর পেয়ে গুলনি চা বাগানের সহকারী ম্যানেজার কাজী হামিম ওই গরুগুলিকে আটক করেন। গরুগুলি ছাড়িয়ে নিতে গত শুক্রবার (১৩ই অক্টোবর) বিকাল ৩টার দিকে আলী হোসেন তার পিতাসহ বাগানে প্রবেশ করেন এবং সহকারী ম্যানেজার কাজী হামিমকে ওই গরুগুলি ছেড়ে দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। কাজী হামিম তাদের কথায় সাড়া না দিয়ে তর্কে জড়িয়ে পড়েন।

বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে উভয় পক্ষ মারামারি শুরু করেন। পাশ্ববর্তী চা শ্রমিকরা ঘটনাটি দেখতে পেয়ে বাগানের পাগলা ঘন্টা বাজানো শুরু করেন। এসময় সকল শ্রমিক জড়ো হলে আলী হোসেন ও তার পিতা পালিয়ে যাওয়ার জন্য দৌড় শুরু করেন। কিন্তু বিক্ষুব্ধ চা শ্রমিকরা তাদের ধাওয়া করে তাদের বসত এলাকায় প্রবেশ করে স্থানীয়দের উপর আক্রমণ শুরু করেন।

খবর পেয়ে পার্শ্ববর্তী এলাকার লোকজনের হস্তক্ষেপের পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হন আলী হোসেন। তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দ্রুত নেওয়া হলে কর্তব্য ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া বাগানের সহকারী ম্যানেজার কাজী হামিম, ২ জন প্রহরী এবং স্থানীয় এলাকার আরোও ৬ জন আহত হয়েছেন। আহতরা সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ব্যাপারে গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিল্লোল রায় (দায়িত্বপ্রাপ্ত) জানান- গুলনি চা বাগানের ঘটনার খবর পেয়ে আমরা তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হই। আলী হোসেনর লাশটি এখনো মর্গে রয়েছে। এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ আসলে পরবর্তীতে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open