বাহুবলে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন

কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে হবিগঞ্জের বাহুবলে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী সোমবার বিকাল সাড়ে তিনটায় ভিত্তিপ্রস্তরের ফলক উন্মোচন করেন।

গত দুদিন ধরে উক্ত স্টেডিয়ামটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন নিয়ে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতীবৃন্দ ও জাপা সংসদ সদস্যের সাথে এমপি কেয়া চৌধুরীর বিরোধ দেখা দেয়। জাতীয় পার্টি দলীয় এমপি আব্দুল মুনিম চৌধুরী বাবু ওই ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করার ঘোষনা দেন। তার সাথে বাহুবল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাইয়ের নের্তীত্বে একদল নেতা কর্মী ভিত্তি প্রস্তরস্থাপন অনুষ্ঠান স্থলে এক কর্মীসভা আহবান করেন। বিষয়টি প্রশাসনের উচ্চ পর্যায়ে জানানো হলে কেয়া চৌধুরী অনুষ্ঠান সফল ভাবে সম্পন্ন করার জন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। রোববার রাত থেকে অনুষ্ঠান স্থলে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার তৎপরতা লক্ষ্য করা যায়। বিপুল সংখ্যক র‌্যাব ও পুলিশ সদস্য মোতায়ন করা হয়। প্রশাসনিক হস্তক্ষেপের কারনে জাপা এমপি মুনিম বাবু তার পূর্ব ঘোষনা প্রত্যাহার করেন। একই সাথে আওয়ামীলীগের কর্মী সভাও পন্ড হয়ে যায়।

এদিকে ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন শেষে স্থানীয় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক সুধী সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এতে উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ জসিম উদ্দিন সভাপতিত্ব করেন। উক্ত সভায় উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, সাধারন সম্পাদক সহ অধিকাংশ নেতা কর্মী অনুপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা সূত্রে জানা গেছে, হবিগঞ্জ ও সিলেটের দায়িত্বপ্রাপ্ত নারী সংসদ সদস্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরীর প্রচেষ্টায় বাহুবলে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের উদ্যোগ নেয় সরকার। এ অবস্থায় উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা ও উপজেলা প্রশাসন উক্ত স্টেডিয়ামের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের উদ্যোগ নেয়। সোমবার বিকেল ৩টায় ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি করা হয় নারী সংসদ সদস্য কেয়া চৌধুরীকে। কিন্তু নবীগঞ্জ-বাহুবল আসনের জাতীয় পার্টি দলীয় সংসদ সদস্য আব্দুল মুনিম চৌধুরী বাবু। তার নির্বাচনী এলাকায় তিনি স্টেডিয়ামের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের দাবিতে প্রশাসনকে চাপ দিতে শুরু করেন। অপরদিকে স্থানীয় আওয়ামীলীগের কিছু নেতা কর্মী ও এ অনুষ্টানের পরোক্ষ বিরোধিতায় লিপ্ত হন।
এ ব্যাপারে এমপি আব্দুল মুনিম চৌধুরী বাবু বলেন, সরকারের বদনাম হবে তাই তিনি ও তার সমর্থকরা স্টেডিয়ামের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন কর্মসূচি বাতিল করেছেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আব্দুল হাই বলেন, নারী এমপি কেয়া চৌধুরী স্থানীয় আওয়ামী লীগকে পাশ কাটিয়ে একাই ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন। নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন না করায় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠান বয়কট করেছে।

এমপি আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী বলেন, সকল শ্রেনী পেশার নারী পুরুষ দলমত নির্বিশেষে জননেতী শেখ হাসিনার উপহার গ্রহন করেছেন। জননের্তী যে স্বপ্ন দেখেন সেই স্বপ্ন জনগনের দ্বার গোড়ায় পৌছে দেয়া আমাদের কাজ। সকল ভাল কাজের পেছনে কিছু মন্দ কাজ ও থাকে। প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন পূরনে উপজেলার আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী ও উপজেলা প্রশাসনকে নিয়ে আমি কাজ করেছি। যারা এই কাজে সহযোগিতা থেকে দূরে ছিলেন হয়ত তারা জননের্তী শেখ হাসিনার ধারাবাহিকতা সেভাবে মেনে নিতে পারেননি। কিন্তু আমি তাদের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ করবে না। আমি মনে করি সকলের সহযোগিতা পেয়েছি বলেই শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে।’

Open