সন্তানকে বাচানোর আকুতি, মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে নড়াইলের মেধাবী ছাত্র মারুফ

সুরমা টাইমস ডেস্কঃ‘মানুষ মানুষেরই জন্য’ একটু সহানুভুতি কি মারুফ পেতে পারে না? নড়াইলের মেধাবী ছাত্র মারুফ সড়ক দূর্ঘটনায় মারাত্বক আহত হয়ে দীর্ঘ এক মাসের বেশি সময় ধরে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালের আইসিইউতে থাকার পরও জ্ঞান ফেরেনি।জানাযায়,ব্রেইনে প্রচুর রক্ত ক্ষরণের ফলে এখনো পর্যন্ত জ্ঞান ফিরেনি। বর্তমানে ঢাকায় চিকিৎসাধীন সে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে,এম এম ইকরামুল ইসলাম মারুফ সরকারি বিএল কলেজের গণিত বিভাগের মেধাবী ছাত্র,পড়াশোনা, খেলাধুলা, সামাজিক কাজকর্ম সবখানেই যার অবাধ বিচরণ এবং মেধার ছাপ। নড়াইলের লোহাগড়া পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের রাজুপুর গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য মোঃ ইবাদত হোসেন ও মেরিনা বেগম এর ছেলে খুলনার সরকারি বিএল কলেজের গণিত বিভাগের মেধাবী ছাত্র এমএম ইকরামুল ইসলাম মারুফ(১৯)। গত ১৬ জুলাই তার নড়াইলে নিজ বাসা থেকে মোটরসাইকেলে করে বিএল কলেজে পরিক্ষা দিতে যাবার সময় খুলনার ফুলবাড়ি গেট এলাকায় মাইক্রোর ধাক্কায় এক সড়ক দূর্ঘটনায় মারাত্বক আহত হন মারুফ। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ঢাকার মহাখালিস্থ হাসপাতাল থেকে সর্বশেষ ঢাকায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়(সাবেক পিজি) এর আইসিইউ ২১ নং কেবিনে চিকিৎসাধীন মারুফ।
প্রতিদিন গড়ে ২০/২৫ হাজার টাকা চিকিৎসা খরচ লাগছে মারুফের। হাসপাতালে মারুফের পাশে অসহায় পিতা, মা ও একমাত্র বোন ইলারা পারভীন বৃষ্টি অপলক দৃষ্ঠিতে তাকিয়ে আছেন কখন মারুফের জ্ঞান ফিরবে। অঝোরে তাদের চোখ থেকে বেরোচ্ছে পানি। দীর্ঘদিন সেনাবাহিনীতে চাকুরি করে প্রাপ্ত পেনশন এর টাকাসহ প্রায় ২০ লাখ টাকা ইতিমধ্যে খরচ হয়ে গেছে। অসহায় পরিবারটি আজ অসহায় সন্তানকে বাঁচানোর আকুতি নিয়ে দ্বারস্থ হয়েছেন সকলের দোয়ারে।
সাহায্য পাঠানোর ঠিকানাঃ
মিসেস মেরিনা হোসেন ( মা)
সোনালি ব্যাংক লি:
লক্ষীপাশা শাখা, নড়াইল।
হিসাব নং ৩৪০৪৭৭২২
বিকাশ নাম্বার: 01768195615

Sharing is caring!

Loading...
Open