কমলগঞ্জে স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা, যুবকের ১ বছরের কারাদন্ড

নিজস্ব প্রতিনিধি:: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার আহমদ নগর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে স্কুলে আসার পথে জোরপূর্ব্বক শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগে সামাদ মিয়া (৩০) নামে এক যুবককে প্রকাশ্যে শত শত শিক্ষার্থীর সামনে মেবাইল কোর্টের মাধ্যমে এক বছরের কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

সোমবার সকাল সাড়ে নয়টায় কমলগঞ্জ উপজেলার কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের বনগাঁও আহমদ ইকবাল মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের অদূরে ঘটনাটি ঘটে। সোমবার সকালে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মাহমুদুল হক এ দন্ড প্রদান করেন।

আহমদ নগর উচ্চ বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের সরইবাড়ি গ্রামের বখাটে সামাদ মিয়া নিজে একজন বিবাহিত হয়ে প্রায়ই স্কুলগামী ছাত্রীদের নানাভাবে উত্যক্ত করে। সোমবার সকাল সাড়ে নয়টায় পাহাড়ঘেষা কালাছড়া গ্রামের দরিদ্র এক কাঁঠমিস্ত্রীর মেয়ে আহমদ ইকবাল মেমোরিয়াল স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী স্কুলে আসছিল। ছাত্রীটি স্কুলের অদূরে আসার পর পূর্ব থেকে ওৎ পেতে বসে থাকা বখাটে সামাদ মিয়া ছাত্রীকে একা পেয়ে পিছন থেকে ঝাপটে ধরে। এক পর্যায়ে জোর পূর্বক ছাত্রীর শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করলে ছাত্রী আত্মরক্ষার্থে সাহায্যের জন্য চিৎকার করে। এসময় স্থানীয় লোকজন ও স্কুলগামী ছাত্ররা দৌড়ে এসে বখাটেকে ধরে স্কুলে নিয়ে আটকে রেখে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে খবর দেন।

ঘটনার খবর পেয়েই কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মাহমুদুল হক দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্যাতিতা ছাত্রী ও প্রত্যক্ষদর্শীদের স্বাক্ষ্য গ্রহন করে পরে জোরপূর্বক শ্লীলতাহানীর চেষ্টার অভিযোগে বখাটে সামাদের এক বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন।
আহমদ ইকবাল মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল চন্দ্র দাশ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্থানীয় এলাকাবাসীসহ শত শত ছাত্র-ছাত্রীদের সামনেই এই বখাটের শাস্তির রায় প্রদান করেছেন।

কমলগঞ্জ উপজেলা অফিসার মোহাম্মদ মাহমুদুল হক বলেন, তিনি দ্রুত আহমদ ইকবাল মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয় গিয়ে নির্যাতিতা ছাত্রী, প্রত্যক্ষদর্শী এমনকি জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতেই সকলের বক্তব্য শুনেই এ রায় দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন বখাটেটি বিবাহিত হলেও এর আগে ছাত্রীদের নানাভাবে উত্যক্ত করতো বলেও জানা গেছে। বখাটে আটক করে তিনি কমলগঞ্জ থানার হেফাজতে দিয়েছেন। নির্বাহী অফিসার আরো বলেন, নারীর প্রতি এ ধরণের অবমাননাকর ঘটনা যেন আর না ঘটে এ জন্য স্কুলের শতশত শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর সামনে রায় ঘোষণা করা হয়। হাতেনাতে অভিযুক্তকে ধরে ফেলায় তিনি এলাকাবাসীকে ধন্যবাদ জানান।

Sharing is caring!

Loading...
Open