ধর্ষণ মামলায় ইউপি সদস্য আতাই মিয়া জেলহাজতে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সিলেটের গোয়াইনঘাটে রিলিফ কার্ডের প্রলোভন দেখিয়ে এক নারীকে ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার হওয়া ইউপি সদস্য আতাউর রহমান ওরফে আতাইকে (৪০) জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার গ্রেফতারকৃত ইউপি সদস্য আতাই মিয়াকে আদালতে হাজির করা হলে জামিনের প্রার্থনা করেন তাঁর আইনজীবী । পরে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে জেল-হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন ।

উল্লেখ্য, সিলেটের গোয়াইনঘাটে রিলিফ কার্ডের প্রলোভন দেখিয়ে এক নারীকে ধর্ষণ করেছে ইউপি সদস্য। নারীর দাযের করা মামলায় গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে পুলিশ গোয়াইনঘাট বাজারে অভিযান চালিয়ে ধর্ষনকারী ইউপি সদস্যকে আটক করে।

পুলিশ ও মামালা সূত্রে জানা যায়- গত ৯ই সেপ্টেম্বর জাফলংয়ের কালীনগরের একজন নারী রিলিফ কার্ডের জন্য ইউনিয়ন পরিষদে আতাই মেম্বারের নিকট যান। চতুর নারী লোভী আতাই তাকে মামার দোকানের মেলার মাঠের পাশে তাঁর মালিকানাধীন পাথর মিলে দেখা করতে বলে। রিলিফ কার্ডের জন্য ঐ নারী সরল বিশ্বাসে আতাই মেম্বারের পাথর মিলে দেখা করতে গেলে আতাই মেম্বার মিল ঘরে তাকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। এঘটনায় ওই ভিকটিম বাদী হয়ে গোয়াইনঘাট থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে যাহার নং ১০ (১১-০৯-১৭)।

গতকাল সোমবার বিকেলে আতাই মেম্বার থানার সামনে ঘোরাঘুরি করার প্রক্কালে গোয়াইনঘাট থানার এস.আই মতিউর রহমান তাকে আটক করে।

এব্যাপারে গোয়াইনঘাট থানার ওসি তদন্ত হিল্লোল রায় জানান- ধর্ষণের মামলায় আতাই মেম্বারকে পুলিশ আটক করা হয়েছে। ধর্ষন মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে মঙ্গলবার কোর্ট হাজতে প্রেরণ করা হয়।

Open