বন্যার পানিতে ডুবে ভাই-বোনসহ বড়লেখায় তিন শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিনিধি:: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় বন্যার পানিতে ডুবে ভাই-বোনসহ ৩ শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (০৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার গাজিটেকা ও বিকেলে তালিমপুর ইউনিয়নের তালিমপুর গ্রামে পৃথক এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হচ্ছে-গাজিটেকা গ্রামের ছলফু মিয়ার শিশু কন্যা মাহি আক্তার (৪) ও ছেলে মুরাদ আহমদ (৭) এবং তালিমপুর ইউনিয়নের তালিমপুর গ্রামের মছকন্দন আলীর শিশু কন্যা খাদিজা বেগম (৮)।

গাজিটেকা গ্রামের দুই ভাই-বোন শিশুর লাশ রাত ৭টার দিকে স্থানীয়রা ও তালিমপুর গ্রামের খাদিজার লাশ বিকেলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উদ্ধার করেন। তাদের মর্মান্তিক এ মৃত্যুতে পরিবার ও এলাকায় শোকের ছায়া নেমেছে।

নিহত শিশুদের পরিবার, এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সোমবার (০৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে গাজিটেকা গ্রামের ছলফু মিয়ার মেয়ে মাহি আক্তার ও ছেলে মুরাদ আহমদ বাড়ির পাশের রাস্তায় খেলতে যায়।

এদিকে চলমান বন্যায় বাড়ির আশপাশের রাস্তাসহ অনেক এলাকা নিমজ্জিত রয়েছে। অসাবধানতাবশত তারা হয়ত ডোবার পানিতে পড়ে যায়। বাবা-মা ও স্বজনরা বিভিন্ন জায়গায় খোঁজে তাদের কোন সন্ধান পায়নি। পরে রাত ৭ টায় বাড়ির পাশের ডোবায় শিশু কন্যা মাহি ও ছেলে মুরাদের ভাসমান লাশ উদ্ধার করেন স্থানীয়রা। অন্যদিকে তালিমপুর ইউনিয়নের তালিমপুর গ্রামের মছকন্দন আলীর শিশু কন্যা খাদিজা বেগম দুপুরে খেলতে গিয়ে অসাবধানতাবশত বাড়ির পাশের বিলের পানিতে পড়ে ডুবে যায়। খবর পেয়ে বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা খাদিজার লাশ উদ্ধার করে।

বড়লেখা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার হিমাংশু রঞ্জন সিংহ তালিমপুর গ্রামে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘শিশুটির লাশ উদ্ধার করে আমরা বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাই। পরে হাসপাতাল থেকে শিশুটির পরিবার লাশ গ্রহণ করেন।’

বড়লেখা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ সহিদুর রহমান পানিতে ডুবে ভাই-বোনের মর্মান্তিক মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘ভাই বোনের মৃত্যুর ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।’

Sharing is caring!

Loading...
Open