বিশ্বনাথ আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক জেলহাজতে

নিজস্ব প্রতিনিধি::বসতবাড়ি ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় বিশ্বনাথের খাজাঞ্চী ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক শংকর চন্দ্র ধরকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

রোববার (২৭আগষ্ট) দুপুরে সিলেটের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট কাকন দে’র আদালতে মামলার ২৬জন আসামী জামিন আবেদন করলে আদালত ২৫ জনের জামিন মঞ্জুর করলেও প্রধান আসামি শংকর চন্দ্র ধরকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

শংকর চন্দ্র ধর একই ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামের ধীরেন্দ্র ধরের ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাদি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট অশোক দেব লিটন, অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম ও অ্যাডভোকেট গিয়াস উদ্দিন। তারা বলেন, হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকদের উস্কানি দিয়ে মুসলমানদের সঙ্গে দাঙ্গা-হাঙ্গামা সৃষ্টির অভিযোগে আদালত শংকর চন্দ্র ধরকে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন।

জানা গেছে, ১৯৯৪ সালে উপজেলার খাজাঞ্চী ইউনিয়নে মদনপুর গ্রামের ৪.৪৯একর জমি কাবালা দলিল মূলে ক্রয় করেন সাবেক চেয়ারম্যান ও একই ইউনিয়ন আ’লীগের সাবেক সভাপতি পীর মোহাম্মদ লিয়াকত হোসেইন। খরিদা সূত্রে মালিক ও খাস দখলদার হয়ে ভোগদখলে থাকা অবস্থায় ঘর-বাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করে আসছেন। গত ২১ আগষ্ট সকালে শংকর চন্দ্র ধরের নির্দেশে ভাংচুর ও মালামাল লুটপাট করা হয়। এঘটনায় ২৩আগষ্ট রাতে পীর লিয়াকত হোসেইনের বাড়ির কেয়ারটেকার, আব্দুর রশিদ শংকর চন্দ্র ধরকে প্রধান আসামি করে সঙ্গীয় ২৬ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় আরও ১৫/২০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়,যাহার (মামলা নং ২০)।

Sharing is caring!

Loading...
Open