অবশেষে ছাতক ও দোয়ারাবাজারবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ অবশেষে সুনামগঞ্জের শিল্পশহর ছাতক ও দোয়ারাবাজারবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে। এদিকে সুরমা নদীর উপর নির্মিতব্য ব্রীজের কার্যাদেশ প্রদান করায় দুই উপজেলার জনসাধারণের মধ্যে ব্যাপক উদ্দিপনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

গত বৃহস্পতিবার ৩০ কোটি ৪৯ লক্ষ ৮৫ হাজার ১৭৪ টাকায় ওহিদুজ্জামান চৌধুরীর ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স জন্মভূমি নির্মাতা ও দ্যা নির্মিতকে কার্যাদেশ প্রদান করা হয়েছে। এর ফলে ছাতক-দোয়ারাবাসীর দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে।

গোবিন্দগঞ্জ-ছাতক-দোয়ারা বাজার সড়কের ছাতকে সুরমা নদীর উপর সেতুতে প্রায় ৮ বছর আগে ৯ কোটি টাকা ব্যয়ে স্থাপন করা পিলারগুলোর উপরেই সেতুটি নির্মিত হবে।

সুনামগঞ্জ জেলা সদরের সঙ্গে শিল্প শহর ছাতকের দুরত্ব কমানো এবং ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলার মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজীকরণ ও ছাতকের শিল্প কারখানায় উৎপাদিত পন্য সড়ক পথে বহনের সুবিধার জন্য সুরমা নদীর উপর সেতু নির্মানের দাবি দীর্ঘদিনের।

এই দাবি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ২০০৬ সালের ২৩ আগস্ট ছাতকে সুরমা নদীর উপর সেতু নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। গুচ্ছ প্রকল্পের আওতায় ১৯ কোটি টাকা ব্যয়ে এই সেতু নির্মাণের কাজ হাতে নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ৯ কোটি টাকা ব্যয়ে সেতুটির পিলারগুলো নির্মাণ হবার পর ঐ সেতুর কাজ বন্ধ হয়ে যায়।

জানা যায় জমি অধিগ্রহণে বাজেট স্বল্পতাসহ বিভিন্ন জটিলতায় সেতু নির্মাণ কাজ বছরের পর বছর বন্ধ ছিলো। তবে ২০১৬ সালের ২৪ অক্টোবর জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ১১২ কোটি ৯৯ লাখ টাকা ব্যয়ে এই ছাতক দোয়ারা বাজার সড়কের ছাতক সুরমা নদীর উপর সেতুর অবশিষ্ট কাজ সমাপ্তকরণ প্রকল্প অনুমোদন লাভ করে।

এ প্রসঙ্গে ছাতক- দোয়ারাবাজারের সংসদ সদস্য মহিবুর রহমান মানিক বলেন, ‘ছাতকে সুরমা নদীর উপর সেতুর নির্মাণ পরিকল্পনা শুরু হয় ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকারের শাসনামলে। তৎকালীন যোগাযোগমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু সেতু তৈরির প্রাক্কলন তৈরির নির্দেশনাও দিয়েছিলেন।

পরে বিএনপি সরকারের শেষ সময়ে রাজনৈতিক নির্বাচনী মওকা হিসাবে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হলেও নানা অসঙ্গতির কারনে তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলে প্রকল্পটি বাতিল হওয়ায় কাজ বন্ধ হয়ে যায়।’

তিনি বলেন, ‘২০০৬ সালের ২৩ আগস্ট সেতুটির ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়। সামান্য কিছু কাজ হবার পরই এই সেতুর কাজ বন্ধ হয়ে যায়। এই সেতুটি হওয়া প্রয়োজন।’

Sharing is caring!

Loading...
Open