বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে এদেশের জন্ম হত না-ইমরান আহমদ

সুরমা টাইমস ডেস্ক::সরকারের ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতি সিলেট-৪ আসনের সংসদ সদস্য ইমরান আহমদ বলেছেন, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু অহিংস এবং একটি স্বনির্ভর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখতেন। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে এদেশের জন্ম হত না। রচিত হত না একটি লাল সবুজ পতাকা। বঙ্গবন্ধুর সঠিক নেতৃত্ব এবং সময়োপযোগী সিদ্ধান্তে আমরা পাক হানাদারদের কবল থেকে মুক্তি পেয়েছিলাম। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের সেই মহানায়ক বঙ্গবন্ধুকে ১৯৭৫ সালে ১৫ই আগস্ট কিছু বিপথগামী সেনা কর্মকর্তাদের হাতে নির্মম ভাবে প্রাণ দিতে হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৫ আগস্ট) সিলেটের গোয়াইনঘাটে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ৪২তম সাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। এসময় তিনি আরো বলেন, সেদিন বুলেটের আঘাতে বঙ্গবন্ধুর বুক ঝাজরা হলেও জাতির বুক থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নাম মুছে যায়নি। যতদিন পৃথিবীর মানচিত্রে বাংলাদেশ থাকবে বঙ্গবন্ধুর নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। জাতির জনকের রেখে যাওয়া স্মৃতি এবং বাংলাদেশকে সোনার বাংলায় রূপান্তরের গৃহীত সবকটি সিদ্ধান্ত আমাদের লালন করতে হবে। তার রেখে যাওয়া কর্মদক্ষতা, বিচক্ষণতা, নেতৃত্ব আমাদের পথচলার দিক-নিদর্শন হয়ে থাকবে। তিনি ছিলেন, তিনি আছেন, তিনি আজীবনই বাঙালীর জাতির জনক হয়েই চিরদিন বহমান থাকবেন।

গোয়াইনঘাটের সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা রেজাউল ইসলামের পরিচালনায় ও নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিশ্বজিৎ কুমার পালের সভাপতিত্বে শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মাওলানা সালেহ আহমদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, গোয়াইনঘাটের সহকারী কমিশনার (ভূমি), জাকির হোসেন।

বক্তব্য রাখেন গোয়াইনঘাট প্রেসক্লাবের সিনিয়র-সহ সভাপতি মিনহাজ উদ্দিন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড সম্পাদক গোলাম সরওয়ার, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা ছয়ফুল আলম আবুল, ফারুক আহমদ, আমিনুর রহমান চৌধুরী, ফরিদ আহমদ শামীম, সামছুল আলম, গোপাল কৃষ্ণ দে চন্দ, ইসমাইল আলী, জামাল উদ্দিন মাষ্টার, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল হক, বাবু সুভাষ চন্দ্র পাল ছানা, মো. আসলম, লুৎফুর রহমান লেবু, থানা অফিসার ইনচার্জ দেলওয়ার হোসেন, মোঃ ইব্রাহিম প্রমুখ।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজ উদ্দিন, নজরুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর হোসেন, ফারুক আহমদ, আনোয়ার হোসেন, আব্দুল লতিফ, আশিকুর রহমান, নাজিম উদ্দিন, এম. নিজাম উদ্দিন, আহমেদ মুস্তাকিন, নজরুল ইসলাম, গোলাম কিবরিয়া রাসেল, মুজিবুর রহমান (লাইব্রেরী মুজিব), ইউপি সদস্য কামাল হোসেন, মুজিবুর রহমান, সুভাস দাস, গোয়াইনঘাট উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ তৃণমূল ছাত্রলীগ পক্ষে এক.এম জাকারিয়া, নিজাম উদ্দিন, আব্দুল মনসুর ডালিম, আইনুল হক, নাজিম উদ্দিন, গোলাম আজাদ প্রমুখ। পরে প্রধান অতিথি চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ করেন।

এর আগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম সাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সকাল ১০টায় গোয়াইনঘাট উপজেলা প্রশাসন চত্বরে বঙ্গবন্ধুর অস্থায়ী প্রতিকৃতিতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রথমেই পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন গোয়াইনঘাটের নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিশ্বজিৎ কুমার পাল। উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফিয়া বেগম।

এছাড়াও থানা প্রশাসনের পক্ষ থেকে থানা অফিসার ইনচার্জ মো. দেলওয়ার হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে সভাপতি মো. ইব্রাহিম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ গোয়াইনঘাটের পক্ষে কমান্ডার আব্দুল হক, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ফারুক আহমদ, যুগ্ম আহ্বায়ক সাহাব উদ্দিন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের পক্ষে কামাল হোসেন ও গোলাম সরওয়ার। গোয়াইনঘাট উপজেলা ও বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ তৃণমূল ছাত্রলীগ পক্ষে এক.এম জাকারিয়া, নিজাম উদ্দিন, আব্দুল মনসুর ডালিম, আইনুল হক, নাজিম উদ্দিন, গোলাম আজাদ প্রমুখ পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

এর আগে উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক বৃষ্টিপাত দুর্যোগ পূর্ণ আবহাওয়া উপেক্ষা করে উপজেলা প্রশাসন পুলিশ বিভাগ সহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে পৃথক পৃথক শোক র‌্যালী বের করা হয়। এসব র‌্যালী উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বঙ্গবন্ধুর অস্থায়ী প্রতিকৃতিতে এসে শেষ হয়। পরে বিভিন্ন স্কুলের শিশু কিশোরদের নিয়ে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

Sharing is caring!

Loading...
Open