ঘটনার ১৩দিনেও গ্রেফতার হয়নি আসামী, আন্দোলন কর্মসূচী স্থগিত !

নিজস্ব প্রতিনিধি:: জগন্নাথপুর ডিগ্রী কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী রুমেনা বেগমের ধর্ষণকারী ইউনুছের গ্রেফতার ও বিচারের দাবীতে শিক্ষার্থীদের ডাকা আন্দোলনের কর্মসুচী স্থগিত করা হয়েছে। আজ শনিবার আন্দোলনের কর্মসূচী হিসেবে শিক্ষার্থীরা ক্লাব বর্জনের ডাক দিয়েছিল। কিন্তুু প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে কলেজ কর্তৃপক্ষ সরকারি নির্দেশে কলেজ দুইদিনের কলেজ বন্ধ ঘোষনা করায় এ কর্মসূচী স্থগিত করা হয়।

জগন্নাথপুর ডিগ্রী কলেজের ৩য় বর্ষের ছাত্র মাসুম হোসেন জানান, কলেজ ছাত্রী রুমেনার ধর্ষকের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবীতে আন্দোলনের কর্মসূচী হিসেবে আজ (শনিবার) ক্লাব বর্জনের ডাক দেয়া হয়েছিল। সরকারী নির্দেশে কলেজ বন্ধ ঘোষনা করায় কর্মসূচী পিছানো হয়েছে। কলেজ খোলার পর আন্দোলনের দিনক্ষণ নির্ধারণ করা হবে। কলেজ বন্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জগন্নাথপুর ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আবদুর নুর।

জানা যায়, গত ২৫ জুলাই উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের কবিরপুর গ্রামের দরিদ্র কৃষক আখলুছ মিয়ার মেয়ে জগন্নাথপুর ডিগ্রী কলেজের শিক্ষার্থী রুমেনা বেগমকে কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার পক্ষে তারই খালাত্ব ভাই ওই ইউনিয়নের চকাছিমপুর গ্রামের আবু মিয়ার ছেলে সিএনজি চালক ইউনুছ মিয়া জোরপূর্বক গাড়িতে তুলে নির্জনস্থানে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় মেয়েটির পরিবারের লোকজন বখাটে ইউনুসের পরিবারের নিকট বিচারপ্রার্থী হলে তারা অপমাণিত হন। এ ঘটনায় কলেজ ছাত্রী ঘৃনা, লজ্জা আর অপমানে ৩১ জুলাই বিষপান করে আত্মহত্যা করে। এ ঘটনায় ধর্ষকসহ ৬ জনের নামে থানায় শিশু ও নারী নির্যাতন আইনে মামলা হয়। ঘটনার ১৩দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ মামলার কোন আসামী গ্রেফতার করতে পারেনি।

এদিকে কলেজ ছাত্রী রুমেনার মৃত্যুর ঘটনায় গত সোমবার জগন্নাথপুর ডিগ্রী কলেজের শিক্ষার্থীরা ধর্ষকের গ্রেফতার ও বিচারের মাধ্যমে ফাঁসি দাবী করে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করে ৪৮ ঘটনার আল্টিমেটাম দেয়। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে ব্যর্থ হওযায় বুধবার পরবর্তীতে আন্দোলনের অংশ হিসেবে ক্লাব বর্জনের ঘোষনা দেয়া শিক্ষার্থীরা।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জগন্নাথপুর থানার এস আই লুঃফুর রহমান জানান, ধর্ষণের শিকার কলেজ ছাত্রীর মৃত্যুর মামলার আসামীদের গ্রেফতারে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ইতিমধ্যে ধর্ষকের সন্ধানে পুলিশের পক্ষ থেকে পুরস্কার ঘোষনা করা হয়েছে।

Open