৯১ বছর বয়সে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন !

সুরমা টাইমস ডেস্ক: থাইল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ হায়াওয়ের এক নারী ৯১ বছর বয়সে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছেন। দীর্ঘ দশ বছরের পড়াশোনা শেষে বুধবার তিনি তার স্নাতক ডিগ্রির সার্টিফিকেট গ্রহণ করেছেন। নতুন স্নাতক কিমলান জিনাকুল বলেন, ‘আমার মধ্যে সবসময় শিক্ষা গ্রহণের প্রতি আলাদা একটা আকর্ষণ কাজ করত। সবসময় ভাবতাম শিক্ষা গ্রহণের কোনো বয়স নেই, যে কোনো সময়েই এটা করা যায়।

আত্মবিশ্বাসী এই নারী সন্তান হারিয়েও এই বয়সে নিজের স্বপ্ন পূরণ করতে পেরেছেন। খবর বিবিসির।

থাইল্যান্ডের সুখোথাই থাম্মাথিরাত ওপেন ইউনিভার্সিটির হাজার হাজার শিক্ষার্থীদের একজন কিমলান জিনাকুল। তার পড়াশোনার বিষয় হিউম্যান অ্যান্ড ফ্যামিলি ডেভেলপমেন্ট। তার জীবনের আরেকটা বিশেষ দিন ৯ আগস্ট বুধবার।

এদিন তার হাতে স্নাতক ডিগ্রির সার্টিফিকেট তুলে দেন থাই রাজা দশম রাম।

কিমলান লামপাং প্রদেশের বাসিন্দা ছিলেন। কিন্তু পরে তিনি হায়াও প্রদেশে বসবাস শুরু করেন। তিনি বলেন, এই বিশ্ব কখনও থামে না। নিজস্ব গতিতে সে চলছে। আমাদের কাছে নতুন নতুন তথ্য আসছে, বিজ্ঞান ও গবেষণা নিত্যনতুন আবিষ্কার দেখছি। পুরনো সমস্যা সমাধানের জন্য সবসময় আমাদের সামনে নিত্যনতুন উপায় আসছে।

যখন বিজ্ঞান-গবেষণায় নতুন কিছু আর থাকবে না, এই বিশ্বও থেমে যাবে। চীনা বংশোদ্ভূত পরিবারে জন্ম নেয়া কিমলান বেড়ে উঠেছেন লামপাংয়ে। এ প্রদেশের শীর্ষ স্কুলে তিনি ছিলেন মেধাবী শিক্ষার্থীদের একজন।

কিন্তু রাজনৈতিক কারণে তার পরিবার ব্যাংককে চলে আসতে বাধ্য হয় এবং সেখানেই তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর নিজের পড়ালেখাটাও আবার শুরু করেন কিমলান।

পাঁচ সন্তানের মা কিমলানের চার সন্তানই মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেছেন এবং একজন যুক্তরাষ্ট্র থেকে পিএইচডি করেন। কিমলানের এক মেয়ে তাকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জনে উৎসাহ জোগায়। সুখোথাই থাম্মাথিরাত ওপেন ইউনিভার্সিটিতে তার মেয়েই তাকে ভর্তি করেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open