বস্তিবাসী নারীদের স্বাস্থ্য সচেতনতায় আরো পর্যাপ্ত ডাক্তার-নার্সদের সম্পৃক্ত করা প্রয়োজন-মেয়র আরিফ

সুরমা টাইমস ডেস্ক:;

সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেছেন, ‘সিলেট নগরীর বস্তিবাসী নারীদের স্বাস্থ্যসেবায় এনজিও, সিসিকের কর্মকর্তা ও কাউন্সিলরসহ সুশীল সমাজ নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন। সিসিক থেকে এ মহৎ স্বাস্থ্যসেবা প্রকল্প বাস্তবায়নে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে। এসব স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে বড় ব্যাপার হচ্ছে সচেতনতা। সাধারণ মানুষকে প্রকল্পে যুক্ত করতে হলে, তাদের সচেতন করা দরকার।’

রোববার রাত ৯টায় সিলেট নগরীর একটি অভিজাত হোটেলে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) ও অ্যানেসভাড-এর অর্থায়নে ও সিলেট সিটি করপোরেশনের সহযোগিতায় আয়োজিত সিলেট নগরীর বস্তিবাসী নারীদের স্বাস্থ্যসেবা প্রকল্প বাস্তবায়নে পরামর্শ সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

সিসিক মেয়র আরিফুল আরো বলেন,‘ দরিদ্র মহিলাদের স্বাস্থ্য সচেতন করতে হলে ছুটির দিনে সংশ্লিষ্ট এনজিও কর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে কথা বললে প্রকল্পের কাজ আরো গতিশীল হবে। নগরীর বস্তিবাসী গরিব নারীদের স্বাস্থ্য সচেতনতার জন্য রাজনৈতিক ও সুশীল সমাজের পাশাপাশি আরো পর্যাপ্ত ডাক্তার-নার্সদের সম্পৃক্ত করা প্রয়োজন।’

সভার শুরুতে সিলেট নগরীর স্বাস্থ্যসেবার ওপর সৃজনশীল তথ্যচিত্র নির্মাতা নিরঞ্জন দে পরিচালিত একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। চমৎকার ছবি ও তথ্যে ওঠে আসে সিলেট নগরীর বস্তিবাসী নারীদের স্বাস্থ্যসেবার দৈন্যতা ও অগ্রযাত্রা। নগরীতে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আগত অভিবাসী পরিবারের মেয়েরা আগে স্যানেটারী নেপকিন ব্যবহার করতেন না। এখন তাঁরা সচেতন হচ্ছেন। আইওএম থেকে প্রাপ্ত নেপকিন এখন তাঁরা ব্যবহার করছেন। তথ্যচিত্রে অভিবাসী জনগণের জীবন মান উন্নয়নে মাঠ থেকে নানা পরামর্শ ওঠে এসেছে। তবে তথ্যচিত্রটি টেনে টেনে দেখানোয় দর্শকরা আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন।

আইআরসি কর্মকর্তা এএম সারোয়ারের উপস্থাপনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইওএম-এর চিফ অব মিশন শরৎ দাশ। মুক্ত আলোচনায় বক্তব্য রাখেন আইওএম কর্মকর্তা ড. সামির কুমার হাওলাদার। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেটের সিভিল সার্জন ডাক্তার হিমাংশু লাল রায়, ওসমসানী হাসপাতালের কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. শিব্বির আহমেদ ও সিসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবিব।

Sharing is caring!

Loading...
Open