সিলেটসহ ৬ সিটিতে আইভীর মতো প্রার্থী খুঁজছে আওয়ামী লীগ।

সুরমা টাইমস ডেস্ক : নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর মতো ইতিবাচক ভাবমূর্তি আছে এমন প্রার্থী খুঁজছে আওয়ামী লীগ। সিলেট সিটি করপোরেশনসহ আসন্ন ৬টি সিটি করপোরেশন রংপুর, রাজশাহী, বরিশাল, ময়মনসিংহ ও গাজীপুরে জনপ্রিয়, স্বচ্ছ ও ভাবমূর্তি সম্পন্ন প্রার্থীর হাতে নৌকা প্রতীক তুলে দিতে চায় দলটি। এক্ষেত্রে আইভীকেই রোলমডেল হিসেবে রেখে প্রার্থী খুঁজে বের করার কাজ চলছে। আ.লীগের উচ্চপর্যায়ের একাধিক নেতার সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা যায়। সেলিনা হায়াৎ আইভীআগামী ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হবে রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন। বাকি পাঁচটি সিটিতে ভোট কার্যক্রমের প্রায় এক বছর বাকি থাকলেও আগেভাগেই প্রার্থী বাছাইয়ের কাজ শেষ করে রাখতে চায় আ.লীগ। আইভীর মতো জনপ্রিয় প্রার্থীর হাতে নৌকা প্রতীক তুলে দেওয়া হলে বিজয় অনেকাংশে নিশ্চিত মনে করেন ক্ষমতাসীনরা। দলের নীতিনির্ধারণী মহল বলছে, এমন জনপ্রিয় প্রার্থী খুঁজতে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বিভিন্ন সংস্থাকে।

সেলিনা হায়াৎ আইভী হলেন সিটি করপোরেশনে দেশের প্রথম নারী মেয়র। গত বছরের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিপুল ভোট পেয়ে দ্বিতীয়বার মেয়র নির্বাচিত হন তিনি। এর আগেরবার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জয়ী হন আইভি। তবে এবার ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে মেয়র হয়েছেন তিনি।

জানা গেছে, আইভির মতো জনপ্রিয় কাউকে পাওয়া গেলে দলীয় নেতাকর্মীদের কাছে গ্রহণযোগ্য না হলেও প্রার্থী হিসেবে পছন্দের তালিকায় এগিয়ে থাকবেন তিনি। তবে স্থানীয় জনগণের কাছে স্বচ্ছ ভাবমূর্তির অধিকারী হতে হবে তাকে।আ.লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ফারুক খান বলেন, ‘আসন্ন সিটি নির্বাচনগুলোতে জনপ্রিয়, স্বচ্ছ ও ভাবমূর্তি সম্পন্ন প্রার্থী নৌকার মনোনয়ন পাবেন। ভাবমূর্তি ভালো এমন প্রার্থী বাছাইয়ের কাজ চলছে এখন।’

দলের শীর্ষপর্যায়ের নেতারা বলছেন, আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন পেতে পারেন আওয়ামী লীগের এমন অনেক প্রার্থী আছেন। তবুও আইভীর মতো জনপ্রিয়, স্বচ্ছ ও ভাবমূর্তি সম্পন্ন প্রার্থী খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে। তারা বলেন, ‘এসব সিটি করপোরেশন নির্বাচনে যেন ভোটারদের মধ্যে উৎসাহ ও আস্থা তৈরি হয় এমন প্রার্থী বেছে নেওয়া হবে। তেমন প্রার্থী পাওয়া না গেলে আগের সিটি নির্বাচনগুলোতে যেসব প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজিত হয়েছেন তাদেরই মনোনয়ন দেওয়া হবে।’

সূত্র জানায়, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সবশেষ সভায় সিটি নির্বাচনগুলোতে পরাজিত কোনও কোনও প্রার্থীকে জনসম্পৃক্ততা বাড়ানোর জন্য কাজ করতে নির্দেশ দিয়েছেন দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কারণ তিনি মনে করেন, নির্বাচনের আরও যে সময় বাকি আছে তাতে চাইলে সুযোগ কাজে লাগিয়ে ভাবমূর্তি গড়া সম্ভব।

এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবউল আলম হানিফ বলেন, ‘স্বচ্ছ ও জনপ্রিয় প্রার্থীকেই সিটি নির্বাচনে মনোনয়ন দেওয়া হবে। আওয়ামী লীগে অসংখ্য জনপ্রিয় প্রার্থী আছে, তাদের মধ্য থেকেই প্রার্থী বেছে নেওয়া হবে।’

নীতিনির্ধারকরা জানান, আগামী সিটি নির্বাচনগুলো জাতীয় নির্বাচনের ওপর প্রভাব ফেলতে পারে। ফলে ওইসব সিটিতে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়ার ওপর জয়-পরাজয় নির্ভর করবে অনেকখানি। তাই নিরপেক্ষ ভোটারের মন জয় করতে হলে স্বচ্ছ প্রার্থীর ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। বিজয় নিশ্চিতের অংশ হিসেবে এই কৌশল গ্রহণ করা হয়েছে দলে।

এ প্রসঙ্গে আ.লীগের সভাপতিমণ্ডলীর আরেক সদস্য কাজী জাফরউল্যাহ বলেন, ‘সিটি নির্বাচনে স্বচ্ছ ও জনপ্রিয় প্রার্থীকে মনোনয়ন দেবে আওয়ামী লীগ। সেজন্য মনোনয়নের ক্ষেত্রে এমন প্রার্থী খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে। কারণ আসন্ন সিটি নির্বাচনে বিজয়ের কোনও বিকল্প নেই।’

সৌজন্যে : বাংলা ট্রিবিউন

Sharing is caring!

Loading...
Open