গোয়াইনঘাটে মরননেশা ইয়াবার বিস্তার ধ্বংসের মুখে যুব সমাজ।

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সিলেটের গোয়াইনঘাটের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ইয়াবার ভয়াবহ বিস্তার ঘটেছে। উপজেলার সর্বত্রই হাত বাড়ালেই মিলছে মরননেশা ইয়াবা। ভয়ঙ্কর এই মাদকের থাবায় ধংস হতে চলেছে তরুণ সমাজ।

সম্প্রতি ভয়াল ইয়াবায় আসক্ত হচ্ছে স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীসহ সকল শ্রেণীর মানুষ। এদের মধ্যে তরুণ সমাজের সংখ্যাই বেশি। সর্বনাশা মস্তিস্ক উত্তেজক এ ইয়াবার থাবায় যুব সমাজ ধ্বংস হওয়ার আশঙ্কা করছেন এলাকার সচেতন মহল। আইন প্রয়োগকারি সংস্থার পক্ষ থেকে মাদক নির্মূলে নানা পদক্ষেপ নিলেও অভিনব কৌশলে বাড়ছে এর ব্যবহার। বিভিন্ন সময়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহীনীর মাদক বিরোধী অভিযানে একাধিক ইয়াবা ব্যবসায়ী ও সেবনকারী আটক হলেও ধরা পড়ছে না অন্তরালে লুকিয়ে থাকা সরবারাহকারী মূল হোতারা।

এলাকার সচেতন মহলের অভিযোগ সমাজের কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তির সমন্বয় ও আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সাথে যোগসাজশে চলছে এই সর্বনাশা বাণিজ্য। যে কারণে দিনের পর দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে ইয়াবার বিস্তার।

সূত্র জানায়, উপজেলা প্রত্যেকটি ইউনিয়নে বেশ কয়েকটি স্থানে এখন হাত বাড়ালেই পাওয়া যাচ্ছে মরননেশা ইয়াবা। মোবাইল ফোনে অর্ডার দিলে মুহূর্তেই হাতে চলে আসছে ছোট আকারের এ মাদকদ্রব্য।
সূত্র আরো জানায়, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে ইয়াবা সেবনকারী ও দুয়েকজন খুচরা বিক্রেতা মাঝে মধ্যে গ্রেফতার হলেও ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছে মূল হোতারা। ফলে ঠেকানো যাচ্ছে না ইয়াবা ব্যবসা।

স্থানীয় অভিভাবক মহল জানান, ইয়াবা এ এলাকার একটি প্রধান অভিশাপ। বর্তমানে নিজ সন্তানদের মাদকমুক্ত রাখতে সদা প্রস্তত ও চিন্তাগ্রস্ত থাকতে হচ্ছে তাদের। তাই যত দ্রুত সম্ভব ইয়াবা ব্যবসায়ী ও জড়িতদের আটক করে বিপথগামী তরুণ সমাজ রক্ষায় প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন তারা।

এব্যাপারে গোয়াইনঘাট থানার ওসি মো. দেলওয়ার হোসেন জানান আসলেই পুলিশের জনবল সংকটের কারণেই মূলত ইয়াবাসহ মাদক নির্মূল করতে একটু সমস্যা হচ্ছে। যে বিষয়টি আমি গতকাল মাসিক আইন শৃঙ্খলা সভায় উত্থাপন করেছি। আমি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাহেবকে বলেছি জনবল সংকট থাকার কারণে পুলিশের একার পক্ষে মাদক নির্মূল করা সম্ভব হচ্ছেনা। তাই প্রত্যেকটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের সমন্বয়ে থানা পুলিশের সদস্য সহ পৃথক মাদক নির্মূল কমিটি গঠন করলে দ্রুত মাদক নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হবে। তবে মাদক নির্মূলে পুলিশের ধারাবাহিক অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে তিনি জানান।

Sharing is caring!

Loading...
Open