অবশেষে যুক্তরাজ্যে গেলেন ইলিয়াস পত্নী।

সুরমা টাইমস ডেস্ক : অবশেষে নিখোঁজ বিএনপি নেতা এম ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসীনা রুশদী লুনাকে যুক্তরাজ্য যেতে দিলেন বিমান বন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশ।

বুধবার সকাল সোয়া ৯টা থেকে বিমান বন্দরে বসিয়ে রাখার পর পৌনে ১১টার দিকে তিনি লন্ডন যেতে পারবেন বলে জানান ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ।

এরপর বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে ঢাকা ত্যাগ করেন লুনা। সঙ্গে আছেন মেয়ে সাইয়ারা নাওয়ার ও ছেলে লাবিব সারার।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তাহসীনা রুশদী লুনা বিমান থেকে যুগান্তরকে মোবাইল ফোনে বলেন, প্রায় দুই ঘণ্টা বসে থাকার পর আমি যখন লাগেজ নিয়ে বাসার উদ্দেশে ফেরত যেতে রওনা দেই তখন একজন কর্মকর্তা এসে বলেন, আপনার পাসপোর্টটি দেন। পাসপোর্ট দেয়ার কিছুক্ষণ পরে তারা জানান, আমি লন্ডন যেতে পারবো।

এর আগে সকাল ৯টার দিকে রাজধানীর হযরত শাহজালাল বিমান বন্দরে পৌঁছালে ইমিগ্রেশন পুলিশ লুনাকে লন্ডন যেতে পারবেন না বলে জানান।

তখন তিনি এ তথ্য জানিয়ে বলেন, আদালতের সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা থাকার পরও বিমান বন্দরের ইমিগ্রেশন পুলিশ তাকে লন্ডন যেতে বাধা প্রদান করেছে। তারা (পুলিশ) বলছে, আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হয়েছে।

লুনা বলেন, অথচ রায়ের আদেশে বলা আছে ‘আদালতের অন্য কোনো নির্দেশ ছাড়া তাকে বিদেশ যেতে বাধা দেয়া যাবে না।’

প্রসঙ্গত, গত রোববারও লুনাকে যুক্তরাজ্য যেতে বাধা দেয়া হয়েছিল। এরপর সোমবার উচ্চ আদালতে রিট করেন লুনা।

রিটের শুনানিতে আদালত লুনাকে বিদেশ যেতে বাধা না দিতে নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে কেন তাকে বাধা দেয়া হয়েছে তা জানতে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে রুল জারি করেন।

আজ সকাল ১০টার দিকে বাংলাদেশ বিমানে তার লন্ডন যাওয়ার কথা। এ জন্য সকাল ৯টায় বিমান বন্দর পৌঁছান তিনি। কিন্তু লুনা যেতে পারবেন কি পারবেন না তা নিশ্চিতের জন্য বাংলাদেশ বিমানটি আধা ঘণ্টারও পরে লন্ডনের উদ্দেশ্যে শাহজালাল বিমান বন্দর ত্যাগ করে।

আগামী ১৪ জুলাই তাহসীনা রুশদী লুনার বড় ছেলে আবরার ইলিয়াসের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে অভিভাবক হিসেবে উপস্থিত থাকতে যুক্তরাজ্যে যাচ্ছেন তিনি। এ বছর ব্রিস্টলের একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আবরার গ্রাজুয়েশন শেষ করেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open