স্বাস্হ্যের জন্য মারাত্মক ঝুঁকির কারন ইনস্ট্যান্ট নুডলস!!

সুরমা টাইমস ডেস্ক: দ্রুত ক্ষুধা নিবারণের জন্য ইনস্ট্যান্ট নুডলস খুব বেশি জনপ্রিয়। কিন্তু আপনি কি জানেন এই ইনস্ট্যান্ট নুডলস আমাদের দেহের জন্য কত বেশি ক্ষতিকর। একটি গবেষণায় এসেছে যে ইনস্ট্যান্ট নুডলসে এত বেশি পরিমাণে সোডিয়াম আছে যা আমাদের দেহে উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, স্ট্রোক এবং কিডনির ক্ষতি করে থাকে। এরপরও দিন দিন পুরো বিশ্বে বৃদ্ধি পাচ্ছে এই ইনস্ট্যান্ট নুডলসের চাহিদা। সারাবিশ্বে কিন্তু এই খাবারটিকে জাঙ্ক ফুড হিসেবে ধরা হয়।

প্রতি প্যাকেট ইনস্ট্যান্ট নুডলসে প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট, সোডিয়াম ও অন্যান্য উপাদান আছে যা ক্ষতিকর কিন্তু ভিটামিন, ফাইবার, খনিজ পদার্থ নেই বললেই চলে। চলুন তাহলে জেনে নেই কেন ইনস্ট্যান্ট নুডলস আমাদের দেহের জন্য ক্ষতিকর।

৫ বছরের ছোট কোনো বাচ্চকেই ইনস্ট্যান্ট নুডলস খাওয়ানো থেকে বিরত থাকুন। কারণ এতে কোনো স্বাস্থ্যকর উপাদান নেই।

ইনস্ট্যান্ট নুডলসের একটি বিশেষ উপাদান ‘স্টাইরোফম’ যা আমাদের দেহে ক্যান্সারের কোষ গঠন করার অন্যতম কারণ।

গর্ভকালীন অবস্থায় অনেক নারী ইনস্ট্যান্ট নুডলস খেয়ে থাকেন। কিন্তু এই সময়ে দেহে প্রয়োজন ভিটামিন, ফাইবার, খনিজ পদার্থ জাতীয় খাদ্য। এবং যেহেতু এটি একটি জাঙ্ক ফুড তাই এই খাবার না খাওয়াই উত্তম।

ইনস্ট্যান্ট নুডলসে আছে অনেক বেশি পরিমানে সোডিয়াম যা আমাদের দেহের হৃদপিণ্ড ও কিডনির জন্য ক্ষতিকর।

মনোসোডিয়াম গ্লুটামেট নামের এক ধরণের ফ্লেভার ব্যবহার করা হয় ইনস্ট্যান্ট নুডলসে এবং এই ফ্লেভারের জন্য যে সকল মানুষের এলার্জি আছে তাদের মাথাব্যথা, শরীরে ব্যথা, বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়।

মোটা হয়ে যাওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ হল এই নুডলস খাওয়া। নুডলসে যে পরিমানে সোডিয়াম আছে তা আমাদের দেহের অতিরিক্ত পানি ধরে রাখে এবং এই কারণে আমাদের দেহের ওজন বৃদ্ধি পায়। আর ওজন বেড়ে গেলে তা আমাদের হার্টের জন্য ক্ষতিকর।

ইনস্ট্যান্ট নুডলস আমাদের দেহের হজম শক্তির জন্য খুব খারাপ। প্রতিদিন ইনস্ট্যান্ট নুডলস খেলে আমাদের দেহে হজম শক্তিতে সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ইনস্ট্যান্ট নুডলসে প্রপাইলেন গ্লাইকল উপাদান আমাদের দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয় এবং এই কারণে আমাদের কিডনি, লিভার ও হার্ট এর ক্ষতি হয়।

প্রতিদিন ইনস্ট্যান্ট নুডলস খেলে তা আমদের দেহে রাসায়নিক পরিবর্তন সঠিকভাবে হতে বাধা দেয়। কারণ ইনস্ট্যান্ট নুডলসে অবস্থিত অ্যাডিটিভস, রং ও প্রিজারভেটিভ থাকে তা দেহের রাসায়নিক বিক্রিয়াতে বাধা প্রদান করে।

Sharing is caring!

Loading...
Open