বিশ্বনাথে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বার সংঘর্ষে ইউপি সদস্য তাজ উল্লাহ নিহত।

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সিলেটের বিশ্বনাথের রামপাশা ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান-মেম্বার সংঘর্ষে ইউপি সদস্য তাজ উল্লাহ (৫৫) নিহত এবং চেয়ারম্যানসহ ২জন আহত হয়েছেন। সোমবার (৩ জুলাই) বিকেল ৩টায় রামপাশা ইউনিয়ন পরিষদে সভা চলাকালে চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলমগীর ও ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ইমাম উদ্দিনের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলমগীর ও প্রতিপক্ষ ইউপি সদস্য ইমাম উদ্দিন আহত হয়েছেন।

ইমাম উদ্দিন পক্ষের নিহত ইউপি সদস্য তাজ উল্লাহ মনোহরপুর গ্রামের মৃত হাজী জহির আলী মেম্বারের ছেলে।

তবে এ ঘটনায় চেয়ারম্যান আলমগীর ও ইউপি সদস্য একে অপরের বিরোদ্ধে পরস্পর বিরোধী বক্তব্য দিয়েছেন। চেয়ারম্যান আলমগীর বলেন, তাকে অকারণে এলাকায় অবাঞ্চিত ঘোষনাসহ ক্ষমতা বলে সরকারি বরাদ্দ আত্মসাৎ করেছেন ইমাম উদ্দিন মেম্বার। এনিয়ে বৈঠক ডাকলে সোমমবার বৈঠকে মেম্বার (ইমাম উদ্দিন) তাকে (চেয়ারমানকে) গালমন্দ করায় হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

ইমাম উদ্দিন মেম্বার বলেন, সমভাবে সরকারি বরাদ্দ বন্ঠন না করে চেয়ারম্যান নিজে এককভাবে বরাদ্দ নিতে চান। পরিষদে একক আধিপত্য বিস্তার করতে গিয়ে তিনি তার উপর হামলা করেন। এতে মাথায় গুরুতর আঘাত পাওয়ায় তার পক্ষের তাজ উল্লাহ মেম্বার নিহত হন।

জানাগেছে, রামপাশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মোহাম্মদ আলমগীর ও ইউপি সদস্য উপজেলা আ’লীগ নেতা ইমাম উদ্দিন আমতৈল গ্রামের বাসিন্দা। দীর্ঘদিন থেকে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দু’জনের মধ্যে দ্বন্ধ চলে আসছে। একই গ্রামে বসবাস করায় সরকারি বরাদ্দসহ এলাকার বিভিন্ন বিষয়ে একে অপরকে কোনঠাসা করে রাখতে চান।

গত মে মাসে মেম্বার ইমাম উদ্দিন গ্রামের লোকজনকে নিয়ে চেযারম্যান আলমগীরকে অবাঞ্চিত ঘোষনা করেন। এনিয়ে চেয়ারম্যান-মেম্বার দ্বন্ধ আরও বেড়ে যায়। রামপাশা ইউনিয়ন পরিষদে একক আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যে পরিষদের সদস্যদের নিয়ে বৈঠক করেন চেয়ারম্যান।

সোমবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে পরিষদের ৯জন সদস্য ইউএনও বরাবরে ইমাম উদ্দিন মেম্বারের বিরোদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব দাখিল করেন। দুপুরে বন্যার্থদের মধ্যে চাল বিতরণ শেষে বিকেলে পরিষদের সকল সদস্যদের নিয়ে বৈঠক করা হয়। বৈঠক চলাকালে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে চেয়ারম্যান আলমগীর ও মেম্বার ইমাম উদ্দিনের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে গুরুতর আহত অবস্থায় মেম্বার ইমাম উদ্দিন ও তাজ উল্লাহকে দক্ষিণ সুরমার নর্থ-ইস্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাজ উল্লাহকে মৃত ঘোষনা করেন।

বিশ্বনাথ থানার ওসি মনিরুল ইসলাম পিপি এম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আহত তাজ উল্লাহ ষ্ট্রোক করে হাসপাতালে মারা গেছেন। এলাকায় উত্তেজনা এড়াতে রামপাশায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

Sharing is caring!

Loading...
Open