আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে হাতাহাতি,ফার্মেসী ভাঙচুর…।

নিজস্ব প্রতিনিধি : ওসমানী বিমানবন্দরে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এর জের ধরে দর্শন দেউড়ীতে ড্রাগ হাউস নামে একটি ফার্মেসী ভাঙচুর করা হয়েছে।গত বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে ওসমানী বিমানবন্দরে যান আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

ভিআইপি গেইট দিয়ে ভেতরে ঢোকা নিয়ে এসময় আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে হাতাহাতি ও ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। পরে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক আলম খান মুক্তির সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ওই ফার্মেসি আমার মালিকানাধীন ‘মনে করে’ এ ভাঙচুর চালানো হয়।

এসময় ফার্মেসির মালিক আবদুর রহমান (২৬) আহত হন। হঠাৎ করে ৮/১০টি মোটর সাইকেল এসে অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে ড্রাগ হাউস ফার্মেসীতে ভাংচুর করে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায় এবং মোবাইলসহ টাকা পয়সা ছিনিয়ে নিয়ে যায়।
জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও জেলা কৃষক লীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক এডভোকেট নুরে আলম সিরাজী জানান, বৃহস্পতিবার জেলা পরিষদের ১নং ওয়ার্ডের সদস্য শাহনুরসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী নিয়ে তিনি বিমানবন্দরে যান। বিমানবন্দরের ভিআইপি গেইট দিয়ে ভেতরে প্রবেশের সময় বাধা দেন মহানগর যুবলীগের আহবায়ক আলম খান মুক্তি।
সিরাজীর অভিযোগ, এসময় মুক্তি জেলা পরিষদের সদস্য শাহনুরসহ অন্যান্য নেতাকর্মীদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এসময় তিনি প্রতিবাদ করলে তার সাথেও দুর্ব্যবহার করেন মুক্তি।

পরে এ নিয়ে বিমানবন্দরে ভিআইপি গেটের সামনে দুপক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে।
আহত আবদুর রহমান অভিযোগ করেছেন, হামলাকারীরা আওয়ামী লীগ নেতা নুরে আলম সিরাজীর অনুসারী।
এদিকে, ঘটনার খবর পেয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনার প্রতিবাদে তাৎক্ষণিকভাবে মিছিল করেছে পশ্চিম আম্বরখানা দর্শন দেউড়ি ব্যবসায়ী সমিতি। ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন সমিতির সভাপতি ড. এমএ সালাম ও সাধারণ এমএ খান শাহীন।
ঘটনার পর থেকেই বিমানবন্দর থানার ওসি মোশাররফ হোসেন বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

Open