ফেসবুকে আপত্তিকর মন্তব্যের জেরে জগন্নাথপুরে নিহত ১ – আহত ১০

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আপত্তিকর মন্তব্যকে কেন্দ্র করে জগন্নাথপুর উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নে শেওড়া গ্রামে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে এক ব্যক্তি খুন ও ১০ জন আহত হয়েছেন। এঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে।
মঙ্গলবার বিকেলে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহতদের জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে রাতেই জমশেদ মিয়া(৫৫)কে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মৃত ঘোষনা করেন।
গুরুতর আহতদেরকে সিলেট এম এ জি ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এঘটনায় বুধবার জগন্নাথপুর থানায় নিহতের ভাই মাহমদ আলী বাদী হয়ে ২১জন কে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং (২৮(০৫)১৭)।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে আশারকান্দি ইউনিয়নের পাটকুড়া জামে মসজিদের মোয়াজ্জিনের বিরুদ্ধে ফেসবুকে ছোট শেওড়া গ্রামের জমশেদ মিয়ার ভাতিজা হাসান মিয়া আপত্তিকর মন্তব্য করে স্ট্যাটাস দেয়। এনিয়ে পাটকুড়া গ্রামের শায়েস্তা মিয়ার সাথে ছোট শেওড়া গ্রামের জমশেদ মিয়ার মঙ্গলবার বিকেলে কথা কাটাকাটি হয়।
এরই জের ধরে ঘটনাটি সংঘর্ষে রূপ নেয়। এক পর্যায়ে শায়েস্তা মিয়ার রামদার কুপে জমশেদ মিয়া গুরুতর আহত হন। দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ও সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়লে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত হন। আহতদেরকে প্রথমে জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জমশেদ মিয়া (৬৫) কে মৃত ঘোষনা করেন।
অপরাপর আহতদের মধ্যে জিতু মিয়া(৩৪), ইউনুছ আলী (৪৫), আম্বর আলী (৫৪), সুজন মিয়া( ২৪), মাহমদ আলী, (৬৫) হাসান আলী (৩৩) কে গুরুতর আহতবস্থায় সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এ ঘটনায় জমশেদ মিয়ার ভাই মাহমদ আলী বাদী হয়ে ২১জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। যার প্রেক্ষিতে পুলিশ কাওছার আলী(২৫) ও তৌরিছ আলী (৬৫) নামে দুজনকে গ্রেফতার করেছে।
জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি হারুন অর রশিদ জানান, খুনের ঘটনার সাথে জড়িত ২জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপরাপর আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open