চালের দাম বাড়ছে কমছে মজুদ

প্রতি সাপ্তাহে চালের দাম কেজি প্রতি অন্তত ১টাকা বাড়ছে। এ মাসের শুর“তে মোটা চালের দাম ছিল ৪০-৪২টাকা, কিš‘ গত ২৫মে তা হয় ৪৫টাকায়। টিসিবির হিসাবেও চালের দামের একাই চিত্র পাওয়াগেছে।
সরকারী চালের মজুদ মাসের শুর“তে ৩লাখ টনের বেশী থাকলেও ২৫মে তা ২লাখ ৩৫হাজার টনে নেমে এসেছে। অপরদিকে সরকার মাসের প্রথমে ৮লাখ টন চালসংগ্রহের লক্ষ নিয় চাল ক্রয় কর্মসূচী শুর“ করলেও ২৫ মে পর্যন্ত ২৭০টন চাল সংগ্রহ করতে পেরেছে খাদ্য অধিদপ্তর।
বাস্তব পনরি¯ি’তি হ”েছ চালের মজুদ নিয়ে সরকার যেমনি সংকটে তেমনি চালের দাম নিয়ে কষ্টে জনগন। একদিকে সরকারী গুদামে চালের মজুদ কমছে অপরদিকে বাজারে হু-হু করে বাড়ছে চালের দাম।
একটি সুত্রের মতে বাজারে চালের দাম বাড়ার কারনে ব্যবসায়ীরা সরকারকে চালদিতে আগ্রহী নয়। মিলমালিকদের মতে ধান কিনে মিলে ভাঙ্গিয়ে কেজি প্রতি চাল উৎপাদনের ব্যায় দাড়ায় ৩৭-৩৮টাকা। যে কারনে সরকারী গুদামে ৩৪টাকা কেজিতে চালদেওয়া সম্ভব হয়না। তারা বলছেন চালের উৎপাদন খরচ সরকার যদি দেয় তাহলে তারা সরকারী গুদামে চাল দিতে পারবেন, তাদের মতে হাওরে ফসল হানি ও ব্লাস্ট রোগে এবছর বোরতে ৪০-৫০লক্ষ টন চাল উৎপাদন কম হয়ছে। যদিও সরকারী হিসাবে ১২ লক্ষটন চাল উৎপাদন কম হয়েছে।
সুত্রে জানা গেছে চালের সংকট নিরসনে সরকার আমদানীতে অত্যন্ত সক্রিয়। তবে আমদানীকৃত চাল দেশে আসতে মূল্য যে আকাশ ছুবেনা তা কেউ নিশ্চিত করতে পারছেনা। অভিজ্ঞমহল খাদ্য সংকট নিরসনের মাধ্যমে মানব সম্পদ রক্ষায় জর“রী কার্যকর ভূমিকা রাখতে সরকারকে অনুরোধ করছেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open