শাল্লায় মাদক ব্যবসা জমজমাট-মাসোহারা পায় পুলিশ

1-copyস্টাফ রিপোর্টার :: সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে পুলিশের যোগসাজসে মাদকের হাটবাজার জমজমাট হয়ে উঠেছে। উপজেলার আনন্দপুর, নারকিলা, উজানগাঁও, কামারগাঁও, উপজেলা সদর, ভেড়ামোহনার নৌকার ঘাটসহ প্রায় অর্ধশতাধিক মাদক স্পটে জমজমাট ভাবে বিক্রি হচ্ছে ভারতীয় অবৈধ মদ। এসব যেন দেখার কেউ নেই। সরজমিন ঘুরে জানা যায়, শাল্লা থানার অপারেটর কনস্টেবল তাহের দীর্ঘ দিন থেকে এ থানায় কর্মরত থাকায় সকল মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে দার দহরম মহরম সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। যার ফলে মাদক ব্যবসায়ীরা অজানা করানে নির্বিগ্নে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন মাদক স্পটে কনস্টেবল তাহের যাতায়াত করতে দেখা যায়। এবং তিনি দীর্ঘ দিন থেকে এ থানার ক্যাশিয়ার পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন অবৈধ মাসোহারা আদায়সহ মদ ও জোয়া খেলায় সহযোগীতা করেন বলে অভিযোগ উঠেছে। একাধিক সুত্র জানিয়েছে, যারা প্রতিমাসে থানার ক্যাশিয়ার তাহেরের কাছে মাসোহারা দিতে বিলম্ব করে তাদের স্পটে অভিযান চালিয়ে মাদক উদ্ধার করা হয়।আর যারা মাসোহারা দেয় তারা ওপেন মাদক ব্যবসা করলেও পুলিশ যেন দেখেও না দেখার ভান করে। বিশ্বস্থ সুত্র জানা যায়, উপজেলার আনন্দপুর গ্রামের মাদক ব্যবসায়ী রণ রায়ের কাছ থেকে ২০০০০, হেলন রানীর কাছ থেকে ২০০০০, রানু দাস ১০০০০, বাবুল মিয়ার কাছ থেকে ১৫০০০ ও গাঁজা ব্যবসায়ী লাল সাধুর কাছ থেকে ৫০০০, রঞ্জিত সরকারের কাছ থেকে ১০০০০সহ প্রায় অর্ধশত স্পট থেকে ২ লক্ষ টাকা চাঁদা আদায় করেন কনস্টেবল তাহের। এসবকে অনেকে বলছেন এটা হচ্ছে পুলিশের পুরাতন বানিজ্য। এ বানিজ্যের মাধ্যমে শাল্লা উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের যুব সমাজ অধপতনে যাচ্ছে। এসব কারনে এলাকার ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন কিছু স্বার্থনেষী মাদক ব্যবসায়ী, শাল্লা থানায় কর্মরত অসাধূ পুলিশ ও তাদের দালাল চক্র। তারা তাদের লাভের আসায় অবৈধ জোঁয়ার আসর বসিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে এলাকার সচেতন মহল ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এব্যাপারে শাল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বজলার রহমান বলেন, এলাকায় কিছু মাদক ব্যবসায়ী রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত আছে। এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মো.হারুন অর রশিদ জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই তবে আমার কোনো পুলিশ সদস্য মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে কোনো ধরনের সম্পর্ক থাকলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open