জাতীয়করণকৃত কলেজস শিক্ষকগণকে নন-ক্যাডার ঘোষণার দাবীতে শিক্ষামন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি

14619929_1087115651343362_82508891_n-copyসিলেট অঞ্চলে কর্মরত বিসিএস(সাধারণ শিক্ষা) ক্যাডার কর্মকর্তারা গতকাল রোববার  সিলেট এমসি কলেজে “শিক্ষার মানোন্নয়ন বিষয়ক মতবিনিময় সভা ও কলেজ বার্ষিকী পূর্বাশা এর মোড়ক উন্মোচন” শীর্ষক আলোচনা সভায় নব্য জাতীয়করণকৃত কলেজ সমূহের শিক্ষকগণকে “আত্তীকরণ বিধিমালা-২০১৬” প্রণয়ন পূর্বক নন-ক্যাডার ঘোষণার দাবীতে স্মারকলিপি প্রদান করেন।
৭টি দাবীতে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। দাবীসমূহ হল নব্য আত্তীকৃত শিক্ষকদের জন্য অবিলম্বে ‘আত্তীকরণ বিধিমালা ২০১৬’ প্রণয়ন করতে হবে। পরবর্তীকালে  সকল আত্তীকরণের ক্ষেত্রে এ-বিধি প্রযোজ্য হবে। নব্য আত্তীকৃত শিক্ষকদের ‘নন-ক্যাডার’ ঘোষণা করতে হবে এবং বিসিএস (সাধারণ শিক্ষা) ক্যাডারে সকল ধরনের পার্শ্ব-প্রবেশ বন্ধ করতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অনুযায়ী, নব্য আত্তীকৃত শিক্ষকদের বদলি ও পদোন্নতি কেবল নব্য জাতীয়করণকৃত কলেজগুলোতেই সীমাবদ্ধ রাখতে হবে। আত্তীকৃত শিক্ষকগণের জন্য স¦তন্ত্র চাকুরি বিধিমালা প্রণয়ন করতে হবে। তাঁদের যাবতীয় কর্মযজ্ঞ পরিচালনার জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের অধীনে প্রয়োজনে একটি পৃথক ইউনিট গঠন  করা যেতে পারে। জাতীয়করণকৃত কলেজগুলোর শূন্যপদে নিয়োগের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি)-এর মাধ্যমে নন-ক্যাডার নিয়োগ বিধিমালা অনুযায়ী নিয়োগ দেয়া যেতে পারে। অথবা প্রতিটি বিসিএস-এ উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মেধাতালিকা অনুসারে ক্যাডারে নিয়োগ দানের পর, বাকিদের মধ্য থেকে বর্তমানে যেভাবে নন-ক্যাডার পদে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে, ঠিক সেভাবে উক্ত কলেজগুলোতে নিয়োগ দেয়া যেতে পারে। বয়স প্রমার্জনের ভিত্তিতে উক্ত কলেজগুলোর আত্তীকৃত শিক্ষকদের কেবল একবারের মতো     বিসিএস পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়া যেতে পারে। এঁদের মধ্যে যারা চূড়ান্তভাবে উত্তীর্ণ  হতে পারবেন, তাঁরাই কেবল শিক্ষাক্যাডারে নিয়োগ পেতে পারেন। আত্তীকরণ বিধিমালা ২০১৬ মহান জাতীয় সংসদ কর্তৃক আইনে পরিণত করতে হবে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন এমসি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নিতাই চন্দ্র চন্দ, সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সিসিক’র সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী দেওয়ান মোঃ হানজালা, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড সিলেটের চেয়ারম্যান প্রফেসর এ.কে এম গোলাম কিবরিয়া তাপাদার, এমসি কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ হায়াতুল ইসলাম আকঞ্জি, এমসি কলেজ শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক মোঃ তোতিউর রহমান, বিসিএস (সাধারণ শিক্ষা) সমিতির যুগ্ম মহাসচিব (সিলেট) ড. সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন, ২০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক এড. রনজিত সরকার প্রমূখ। (প্রেস বিজ্ঞপ্তি)

Sharing is caring!

Loading...
Open