দিনভর ভোগান্তি শেষে সিলেটে পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার

1ডেস্ক রিপোর্ট :: সারাদিনের জনভোগান্তি শেষে সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনার কামরুল আহসানের হস্তক্ষেপ ও আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছেন সিলেটের পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টায় মহানগর পুলিশ কমিশনার কার্যালয়ে এক সভায় পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়।

এ সময় পুলিশ কমিশনার কামরুল আহসান বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় দুজন মানুষ মারা গেছে। জনতা গাড়িতে আগুন দিয়েছে। কিন্তু আইন তো আছে, আপনারা গাড়ি পোড়ানোর ঘটনায় মামলা করুন। ধর্মঘট ডাকার আগে আপনাদের দাবির বিষয় আমাদের জানানো উচিত ছিল। কিন্তু আপনারা তা না করে ধর্মঘটের ডাক দিলেন। এতে সাধারণ মানুষ ভোগান্তির শিকার হয়েছে। এটা আপনাদের বোঝা উচিত ছিল।

এ সময় পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের বিভাগীয় সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সেলিম আহমদ ফলিক বলেন, পুলিশের উপস্থিতিতে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। মামলার আসামিদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে হবে।

তিনি বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় দুজন নিহত হয়েছে। এর মূল কারণ বিশ্বরোডে সিএনজিচালিত অটোরিকশা চলাচল বন্ধ করতে ব্যর্থ হয়েছে পুলিশ। সিএনজি অটোরিকশার যাত্রীদের বাঁচাতে গিয়ে এ দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী ও চালক মারা গেছে। এই ঘটনায় মামলা গ্রহণের আহ্বান জানিয়ে তিনি চালককে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।

এ সময় পুলিশ কমিশনার পৃথক দুটি মামলা গ্রহণ করে তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নিতে থানা পুলিশকে নির্দেশ দেন। সেই সঙ্গে সড়কে সিএনজিচালিত আরেটারিকশা বন্ধের জন্য ডিসি ট্রাফিককে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন তিনি।

পরে সন্ধ্যা ৬টায় পরিবহন মালিক সমিতির নেতারা ও শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা তাদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন। সভায় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার এসএম রুকন উদ্দিন (প্রশাসন), অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম) মাইনুল হাসান, উপকমিশনার (ট্রাফিক) মুশফেকুর রহমান, উপকমিশনার (দক্ষিণ) বাসু দেব বণিক, অতিরিক্ত উপ-কমিশনার জেদান আল মূসা, জেলা মালিক সমিতির মহাসচিব আবুল কালাম চেয়ারম্যান, সহ-সভাপতি হেলাল মিয়া, সহ-সভাপতি আব্দুল মন্নান, আজিজুর রহমান চৌধুরী প্রমুখ।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ডাকা দূরপাল্লার বাস ধর্মঘট শুরু হয়। গত বুধবার সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের দক্ষিণ সুরমার লালারবাজারে সিলেটগামী হানিফ পরিবহনের একটি বাসের চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত হন।

এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ জনতা দুর্ঘটনাকবলিত বাসটি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। এর প্রতিবাদে বাস মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ সিলেটে অনির্দিষ্টকালের জন্য দূরপাল্লার বাস ধর্মঘটের ডাক দেন।

ধর্মঘটের কারণে বৃহস্পতিবার সিলেটের কদমতলি টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার কোনো বাস ছেড়ে যায়নি। বাস না পেয়ে টার্মিনালে গিয়ে ভোগান্তির শিকার হন যাত্রীরা।

এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে যাওয়া শিক্ষার্থীরা অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েন। আগামীকাল শুক্রবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open