রমজান মাসে তীব্র যানজটে নাকাল সিলেটবাসী

1 ফখরুল ইসলাম :: রমজান মাসেও নগরীর নাইওরপুলে পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ের সামনে সৃষ্টি হয় অসহনীয় যানজট। তীব্র এ যানজটে চরম ভোগান্তি হয় জনদুর্ভোগে। নগরীর অন্যান্য রাস্তা থেকে নাইওরপুল রাস্তায় সবচেয়ে বেশি যানজট সৃষ্টি হয়। এই যানজটের ফলে স্কুল ও অফিসগামীরা নির্ধারিত সময়ে তাদের গন্তব্যে পৌছঁতে পারেন না।  যানজট এবং নগর জীবন সমার্থক শব্দ হয়ে দাঁড়িয়েছে। যানজটের কবলে পুরো নগরী স্থবির হয়ে পড়েছে। সকাল থেকে দুপুর, দুপুর থেকে বিকাল, এরপর সন্ধ্যা গড়াতেই স্থির হয়ে যায় পুরো নগরী। শম্ভুক গতিতে চলতে চলতে কোনো মতে গন্তব্যে যেতে হয় যাত্রীদের। এভাবেই চলছে নগরীর যানবাহন। সঙ্গে যোগ হচ্ছে সীমাহীন দুর্ভোগ, দুর্বিষহ ভোগান্তি আর সময়ের অপচয়। বৃহস্পতিবার লক্ষ্য করা যায়, নাইওরপুল ছাড়াও নগরীর বিভিন্ন রাস্তায় সৃষ্টি হয়েছে তীব্র যানজট। আর এই সব যানজট নিরসনে ট্রাফিক বিভাগে তেমন তৎপর দেখা যায়নি। তারা তাদের গতানুগতিক নিয়মে দায়িত্ব পালন করছেন। কিছু ভুক্তভোগীরা বলেন, নাইওরপুল পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ের সামনে এভাবে যানজট সৃষ্টি হলে অন্যান্য রাস্তায় এর ছেয়ে বেশি যানজট সৃষ্টি হবে। তাদের কার্যালয়ের সামনেই যানজট নিরসন করতে পারেন না।

2তাহলে নগরীর অন্য রাস্তার যানজট নিরসন করবে কিভাবে? অপরিকল্পিত চলাচল ও ব্যবস্থাপনাজনিত ত্র“টি পরিস্থিতিকে জটিল করে তুলেছে। শুধু তাই নয়, ট্রাফিক পুলিশের চোখের সামনেই চালকেরা কোনো নিয়মকে তোয়াক্কা না করে ইচ্ছাকৃত ভাবে ওভারটেকিং করে। এমনকি নাইওরপুলের রাস্তার পাশে দীর্ঘ সময় গাড়ি থামিয়ে যাত্রী উঠা নামা করে। এর ফলে সৃষ্টি হয় যানজট। এইসব দেখেও না দেখার ভান করে ট্রাফিক পুলিশ। কারন এসব নিরসন করলে তাদের দৈনিক রোজগারের দিকে আঘাত পড়বে। তাদের এই দৈনিক রোজগারের কারনেই রমজান মাসেও যানজটের ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে যাত্রীদের। এমনকি যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ঘোষণা দিয়েছিলেন একটি মোটর সাইকেলে তিনজন যাত্রী চলাফেরার পারবেন না।  আর কেউ যদি চলাফেরা করেন তাদের উপরে আইনানুগ ব্যবস্থার নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু  সিলেট নগরীতে দেখা যায়  ট্রাফিক পুলিশের সামনে দিয়েই  হরদমে একটি মোটর সাইকেলে তিনজন চলাফেরা করছেন। এদিকে রমজান ও ঈদ উপলক্ষে সিলেট নগরীতে ট্রাফিক পুলিশের চাদাঁবাজি বৃদ্ধি পেয়েছে বলে একাধিক পরিবহনের ড্রাইভাররা জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে সিলেট ট্রাফিক পুলিশের এডিসি সাথী রানী দাশ বলেন , আমরা যথাসাধ্য যানজট নিরসনে কাজ করে যাচ্ছি। চাদাঁবাজির ব্যাপারে তিনি বলেন, রমজান মাসেও কেউ চাদাঁ আদায় করছে এমন সঠিক অভিযোগ কারো বিরোদ্ধে পাওয়া গেলে তাদের বিরোদ্ধ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open