কামালবাজারে রমজান উপলক্ষে দরিদ্র পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

Kamalbazar Ramadan Pic 02পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে দরিদ্র ও অস্বচ্ছল পরিবারের মধ্যে খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী বিতরণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন- দলমত নির্বিশেষে বিত্তশালী ব্যক্তিবর্গ সমাজের অসহায় দু:স্থ মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আসলে তাদের কষ্ট অনেকটাই লাঘব করা সম্ভব হবে। তারা সম্পদশালী ব্যক্তিদের আর্ত-মানবতার সেবায় নি:স্বার্থভাবে আত্মনিয়োগ করার আহ্বান জানান।
সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার কামালবাজার ইউনিয়নের কাড়ারপার প্রকাশিত গাঙপাড় গ্রামের যুক্তরাজ্য কমিউনিটি নেতা ও বিশিষ্ট সমাজসেবক দিলোয়ার হোসেনের বাড়িতে গতকাল রবিবার সকালে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ফেঞ্চুগঞ্জ মানিকোনা স্কুল ও কলেজ এর প্রাক্তন অধ্যক্ষ ও কুলাউড়া রেহানা টি গার্ডেনের স্বত্তাধিকারী শফিকুল বারী। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন হাজী আবুল হোসেন এবং ডেইলি নিউএজ’র স্টাফ করেসপনডেন্ট ও সিলেট জেলা প্রেসকাবের কোষাধ্যক্ষ মনিরুজ্জামান মনির।
দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে ও তরুণ সমাজকর্মী নিজাম উদ্দিনের উপস্থাপনায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- যুক্তরাজ্য প্রবাসী ও তরুণ সমাজসেবী আদনান হোসেন ও সিয়াম হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি শাহীন আলী, সিলেট ল’ কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ কামালবাজার শাখার সভাপতি ফরিদ আহমদ, তরুন সমাজ সংগঠক মুহিবুর রহমান, এনামুল হক মাক্কু, মাসুক মিয়া, জমসেদ আলী, আমির হোসেন, আনোয়ার আলী, আবদুস সালাম প্রমুখ।
সভাপতির বক্তব্যে দিলোয়ার হোসেন বলেন- তার পরিবারের উদ্যোগে এবং যুক্তরাজ্যভিত্তিক সমাজকল্যাণমূলক সংগঠন কসারাফ চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশন ও লিটল ফিট ট্রাস্টের সহযোগিতায় বিগত দুইবছর ধরে তারা গরীবদের মাঝে রমজান মাসে খাদ্য বিতরণ করে আসছেন। তিনি জানান- এবছর কামালবাজার এলাকায় ১৩০০ পরিবারসহ ঢাকা ও সুনামগঞ্জের প্রায় ১৫০০ পরিবারের মধ্যে খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হবে। তিনি আগামীতেও এ উদ্যোগ অব্যাহত রাখার পাশাপাশি এই অঞ্চলের দরিদ্র মানুষের কল্যাণে উন্নয়নমূলক প্রকল্প হাতে নেয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তাদের এই উদ্যোগকে সর্বাত্মকভাবে সহযোগিতা করায় এলাকার যুব সমাজসহ সর্বস্তরের মানুষকে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন দেলোয়ার হোসেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open