মিতুর খুনিদের কাছাকাছি পুলিশ

zzনিউজ ডেস্ক : পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুর খুনিদের কাছাকাছি পৌঁছেছে পুলিশ। আগামীকাল মঙ্গলবারের মধ্যে চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে উল্লেখযোগ্য তথ্য জানানো সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপি) কমিশনার ইকবাল বাহার।
সোমবার সকালে সিএমপি কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ইকবাল বাহার এ সব কথা বলেন। তিনি বলেন, হত্যাকাণ্ডে খুনিদের ব্যবহৃত মোটারসাইকেল নগরীর চকবাজার থানার শুলকবহর এলাকার একটি গ্যারেজ থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।
এর আগে এ হত্যাকাণ্ডের ভিডিও ফুটেজ ও ঘটনাস্থল থেকে যেসব আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে তাতে আমরা খুনিদের সনাক্তের পর্যায়ে পৌঁছে গেছি। আগামীকাল মঙ্গলবারের মধ্য হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে উল্লেখযোগ্য তথ্য জানানো সম্ভব হবে। তবে এর আগে উদ্ধার করা মোটরসাইকেলটির মালিক কে, এ সম্পর্কে বিস্তারিত খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।
সিএমপি কমিশনার ইকবাল বাহার জানান, নগরীর চকবাজার থানা এলাকা জামায়াত-শিবিরের আস্তানা। ইসলামী ছাত্রশিবিরের একটি অংশ পর্যায়ক্রমে জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) সঙ্গে যোগ দিয়েছে কি না সে বিষয়টিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
তিনি আরও বলেন, শিবিরের সাবেক অনেক সদস্য বর্তমানে জেএমবির হয়ে কাজ করছে এমন কিছু তথ্য আমাদের হাতে রয়েছে। বিষয়টি বিবেচনায় নেয়া হয়েছে। তবে যথাযথ সাক্ষ্যপ্রমাণ ছাড়া কাউকে দোষারোপ করা হবে না বলেও মন্তব্য করেন সিএমপি কমিশনার।
পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার সাংবাদিকদের বলেন, পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী হত্যা পুলিশ বিভাগের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। ফলে হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারে পুলিশের সব সংস্থা একসঙ্গে কাজ করছে।
তিনি বলেন, গতকাল রবিবার রাতে এ ব্যাপারে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের সদর দপ্তরে জরুরি বৈঠক হয়। এতে অতিরিক্ত কমিশনার, সহকারী কমিশনারসহ সব কর্মকর্তাকে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
বনজ কুমার আরও জানান, পিবিআই, সিআইডি, ডিবি, কাউন্টার টেররিজম ইউনিট (সিটিআই), র‌্যাবসহ বিভিন্ন সংস্থা সম্মিলিতভাবে মিতুর খুনিদের গ্রেপ্তারে একযোগে মাঠে নেমেছে। প্রায় তিন ঘণ্টার রুদ্ধদ্বার বৈঠকে মিতু হত্যাকাণ্ডের ভিডিও ফুটেজ নিবিড়ভাবে পর্যালোচনা করা হয়েছে। এছাড়া বৈঠকে হত্যাকাণ্ডের মোটিভ, চট্টগ্রামের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতিসহ সার্বিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সভায় সম্মিলিতভাবে কাজ করে বাবুল আক্তারের স্ত্রীর খুনিদের যেকোনো মূল্যে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছেন ভারপ্রাপ্ত আইজিপি।
উল্লেখ্য গত রবিবার সকাল সাতটার দিকে চট্টগ্রাম মহানগরীর জিইসি মোড়ে বাড়ি থেকে আনুমানিক ১০০ গজ দূরে পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুকে ছুরিকাঘাত ও গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ সময় পাশেই ছিল তাদের ছেলে মাহির। তাকে স্কুলবাসে তুলে দিতেই বাসা থেকে বের হয়েছিলেন মাহমুদা।

Sharing is caring!

Loading...
Open