রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষককে হত্যার হুমকি

l7রংপুর প্ররতিনিধি : রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের শিক্ষক আতাউর রহমানকে চিরকুট দিয়ে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে দেয়া হয়েছে একটি এক টাকার কয়েন। এ ঘটনায় নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন ওই শিক্ষক। এঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন ক্যাম্পাসের শিক্ষকরাও। তবে কেন বা কি কারণে তাকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে তার কোনো কারণ খুঁজে পাচ্ছেন না আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। এ বিষয়ে ওই শিক্ষক রংপুর কোতোয়ালী থানায় নিরাপত্তা চেয়ে সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

গত বৃহস্পতিবার তাকে এ চিরকুট দেয়া হয়েছে। বিষয়টি আজ শনিবার সাংবাদিকরা অবহিত হন।

প্রশাসন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সূত্র জানায়, শিক্ষক আতাউর রহমানকে হত্যার হুমকি দেয়ার মত অবস্থান ক্যাম্পাসে তার নেই। সুতরাং বিষয়টি আসলে কী তা ক্ষতিয়ে দেখতে এরই মধ্যে মাঠে কাজ করছেন গোয়েন্দারা।

পুলিশ জানায়, গত ২৬ মে তিনি দুপুর ১২ টার বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক ভবন-৩ এর তৃতীয় তলায় অবস্থিত তার চেম্বারে প্রবেশ করার সময় দরজার নিচে একটি চিঠির খাম দেখতে পান। এসময় তিনি খামের ভিতর ছিল “Be careful. Because you have not enough time” লেখা একটি চিরকুট।সঙ্গে বাংলাদেশি এক টাকার একটি মুদ্রা (কয়েন) পাওয়া যায়।

চিঠিটি দেখার পর থেকে তিনি নিরাপত্তাহীনতার কথা চিন্তা করে সেই দিনই বিকালে রংপুর কোতোয়ালি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। যার নং-১৭৩৩/২৬.০৫.১৬ ইং। এমনকি এই ঘটনায় তিনি বিশ্ববিদ্যালয় সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় মৌখিক ভাবে উপাচার্য, রেজিস্ট্রার ও প্রক্টর বরাবর জানিয়েছেন বলে জানান।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর মো: শাহীনুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাটি মৌখিকভাবে জেনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলেই বিষয়টি খতিয়ে দেখা সহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আসলে ওই চিঠির ভিত্তি কি তা নিয়ে আলোচনা সমালোচনা চলছে ক্যাম্পাস জুড়ে। ক্যাম্পাসে গুঞ্জন শুরু হয়েছে, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়কে উত্তাপ্ত করার কোন পরিকল্পনা কি না তাও ক্ষতিয়ে দেখার পরামশ কারো কারো।

রংপুর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবিএম জাহিদুল ইসলাম জানান, আমরা বিষয়টি জেনেছি। ওই শিক্ষক সাধারণ ডায়েরি করেছেন। আমরা বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখছি।

Sharing is caring!

Loading...
Open