৪০ প্রতিষ্ঠানকে অ্যাক্রেডিটেশন সনদ দিয়েছে বিএবি

y3নিউজ ডেস্ক :বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন বোর্ড (বিএবি) ৭ বছরে ৪০ প্রতিষ্ঠানকে অ্যাক্রেডিটেশন সনদ প্রদান করেছে। এর মধ্যে ৩৭টি দেশীয় ও বহুজাতিক টেস্টিং, ক্যালিব্রেশন; ১টি মেডিকেল ল্যাবরেটরি এবং ২টি সনদপ্রদানকারী সংস্থা।

বৃহস্পতিবার শিল্পমন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ‘বিশ্ব অ্যাক্রেডিটেশন দিবস-২০১৬ এবং ৭ বছরে বিএবির অর্জন সম্পর্কে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন বোর্ডের (বিএবি) ডিরেক্টর জেনারেল আবু আবদুল্লাহ।

৭ বছরে বিএবির অর্জন তুলে ধরে তিনি জানান, শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন বোর্ড ( বিএবি) টেস্টিং ও ক্যালিব্রেশন ল্যাবরেটরির জন্য ২০১৫ সাল থেকে এশিয়া প্যাসেফিক ল্যাবরেটরি অ্যাক্রেডিটেশন কর্পোরেশন (এপিএলএসি) এবং ইন্টারন্যাশনাল ল্যাবরেটরি অ্যাক্রেডিটেশন কর্পোরেশনের (আইএলএসি) মিউচুয়াল রিকগনিশন অ্যারেঞ্জমেন্ট (এমআরএ) অর্জন করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে আবু আবদুল্লাহ বলেন, সরকারের বাণিজ্য, খাদ্য, কৃষি, প্রাণিসম্পদ ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন বোর্ড অত্যন্ত নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আমরা প্রতিবারের মতো এবারও নানা আয়োজনের মধ্যে বিশ্ব অ্যাক্রেডিটেশন দিবস পালন করতে যাচ্ছি।

এ বছরের দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘অ্যাক্রেডিটেশন: সরকারি নীতি নির্ধারণে বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত ব্যবস্থা’।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বয়লার কারখানা পরিদর্শন, গ্যাস সিলিন্ডার টেস্টিং ও মেডিকেল ল্যাব-এর ক্ষেত্রে অ্যাক্রেডিটেশন সেবা সম্প্রাসারণের মাধ্যমে ভোক্তার আস্থা অর্জন সম্ভব। পণ্য ও পণ্য উৎপাদন প্রক্রিয়ায় সনদ প্রদানের মাধ্যমে সেবা খাতের দক্ষতা বৃদ্ধিই আমাদের মূল লক্ষ্য।

আবু আবদুল্লাহ জানান, বাংলাদেশ সরকার ৯ জুন বিশ্ব অ্যাক্রেডিটেশন দিবসকে ২০১৪ সাল থেকে জাতীয় দিবস হিসেবে ঘোষণা করেছে। বিএবি এবং ডিসিসিআই-এর যৌথ উদ্যোগে ২০১৪ ও ১৫ সালের ৯ জুন বিশ্ব অ্যাক্রেডিটেশন দিবস উদযাপন করছে। এবারও দিবসটি উদযাপন করবে তারা।

Sharing is caring!

Loading...
Open