লন্ডনে সড়কের নিচে স্বর্ণের খনি!

3464ডেস্ক রিপোর্টঃ লন্ডনের সড়ক দিয়ে গাড়ি চালিয়ে ছুটছেন, কিন্তু জানেন কি এই শহরের নিচে রয়েছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্বর্ণের মজুদ। এই শহরে হয়তো স্বর্ণ গড়াগড়ি করে না, তবে মাটির নিচেই রয়েছে সাড়ে ছয় হাজার টনের বেশি।
মাটির নিচে থাকা ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের সাতটি ভল্টে মজুদ থাকা স্বর্ণের পরিমাণ সাড়ে ৫ হাজার ১৩৪ টন। এগুলো ১২.৪ কেজির একেকটি বার আকারে পাঁচ লাখ স্বর্ণ বার রাখা আছে। প্রতিটি স্বর্ণ বারের দাম সাড়ে তিনলাখ পাউন্ড বা বাংলাদেশি চারকোটি টাকার বেশি। লন্ডনের থ্রেডনিডল স্ট্রিটের নিচে দুইটি তলার ভল্টগুলোয় স্বর্ণ রাখা আছে। সেখানে জেপি মরগান এবং এইচএসবিসির মালিকানায় আরো ছয়টি ছোট আকারের ভল্ট রয়েছে, যেখানে এসব ব্যাংকের স্বর্ণ আছে। সব মিলিয়ে এই সড়কের নিচে স্বর্ণ আছে সাড়ে ৬ হাজার টনের বেশি। যদিও এই সোনার পুরোটার মালিক ব্যাংক বা ব্রিটেন সরকার নয়। বেশিরভাগ স্বর্ণের মালিক বাণিজ্যিক বিভিন্ন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান। সরকারি মালিকানা রয়েছে মোট স্বর্ণের দশভাগের একভাগ।
এর চেয়ে বেশি স্বর্ণ জমা আছে একমাত্র নিউইয়র্ক ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকে, যা সাড়ে ৬ হাজার টন। স্বর্ণ এবং দামী পাথর রাখার জন্য নতুন একটি ভল্ট কিনতে যাচ্ছে ব্যাংক অব ইংল্যান্ড। নতুন যে ভল্টটি কেনা হবে, সেখানে ২ হাজার টনের বেশি স্বর্ণ রাখা যাবে, যা হবে ইউরোপের মধ্যে সবচেয়ে বড় ভল্টগুলোর একটি।
ভল্টে যেসব সম্পদ ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান স্বর্ণ জমা রাখে, এর একটি অ্যাডরিশ অ্যাশ। এরা বলছে, বেসরকারি মালিকানার স্বর্ণের মধ্যে বিনিয়োগ ফান্ড, ধনী পরিবারের সম্পদ, ট্রাস্ট ফান্ড ইত্যাদির স্বর্ণ রয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open