শিক্ষাকে সহজলভ্য করা সম্ভব

5স্টাফ রিপোর্টার : ‘তথ্য-প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহারের মাধ্যমে শিক্ষাকে সহজলভ্য করে তোলা সম্ভব। সেই লক্ষ্যে শিক্ষকদের তথ্য ও প্রযুক্তি জ্ঞানে আরো দক্ষ হতে হবে।’

রোববার (১৫ মে) গাজীপুরে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাউবি) বিএড প্রোগ্রামে শিক্ষা বিস্তরণ শীর্ষক জাতীয় কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এ কথা বলেন।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের দূরশিক্ষণ পদ্ধতি সম্পর্কে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে পাঠদানের কর্মসূচি এক যুগান্তকারী পদক্ষেপ। শিক্ষকদের সে জ্ঞান আরো ভালোভাবে আয়ত্ব করতে হবে। অর্জিত জ্ঞান শিক্ষার্থীদের মাঝে সহজভাবে পৌঁছে দিতে হবে। তথ্য ও প্রযুক্তি জ্ঞানে দক্ষ হতে, শিক্ষকদের নিজেদের উদ্যোগী হতে হবে।’

বর্তমানে প্রায় ৬ লাখ শিক্ষার্থী উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করছে উল্লেখ্য করে মন্ত্রী বলেন, ‘আর্থ-সামাজিক কারণে, সুযোগ-সুবিধার অভাবে, বিভিন্ন স্তরে ঝরে পড়া যে কোনো বয়সের শিক্ষার্থী যে কোনো স্তরে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনার সুযোগ লাভ করতে পারে। প্রাথমিক থেকে সর্বোচ্চ শিক্ষা লাভের এই সুযোগ বাউবি নিশ্চিত করছে। বর্তমানে বাউবিতে ৫ লাখ ৭০ হাজার শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছে। আগামীতে ১০ লক্ষ শিক্ষার্থী এর আওতায় আসবে।’

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অব অ্যাডুকেশন ও টিচিং কোয়ালিটি ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্ট-২ এর সহযোগিতায় ন্যাশনাল ওয়ার্কশপ অন দি ডেলিভারি মোড অব বিএড প্রোগ্রামের দিনব্যাপী এ কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম এ মান্নান।

কর্মশালায় সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য বলেন, ‘একবিংশ শতাব্দীর শিক্ষা চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়কে ভার্চুয়াল বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত করা হবে। এ লক্ষ্যে অনলাইন অ্যাডুকেশন, ই-বুক, ওয়েব রেডিও, ওয়েব টিভি, মোবাইল অ্যাপসসহ ব্লেন্ডেড অ্যাডুকেশনের সর্বোত্তম ব্যবহার ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে।’

শিক্ষা কার্যক্রমে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে শিক্ষা বিস্তরণের লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিভাগের মাধ্যমে মোবাইল অ্যাপসের একটি ডিজিটাল ডিসপ্লে প্রদর্শিত হয়।

অন্যান্যের মধ্যে কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন- ডিজি-ডিরেক্টরেট সেকেন্ডারি অ্যান্ড হায়ার অ্যাডুকেশন প্রফেসর ফাহিমা খাতুন ও টি কিউ আই সেকেন্ড প্রজেক্ট এর প্রকল্প পরিচালক জনাব মো. জহির উদ্দীন বাবর ও প্রো-উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার মোকাদ্দেম হোসেন প্রমুখ।

কর্মশালায় ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহেরসহ শিক্ষামন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, স্কুল অব অ্যাডুকেশনের সকল শিক্ষক, দেশের সকল সরকারি-বেসরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজের অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষ, নায়েম এর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্কুলের ডিন, প্রফেসর ও পরিচালকসহ ১৭৫ জন অংশগ্রহণ করেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open