চার নেতায় বন্দি গোয়াইনঘাট ছাত্রলীগ, কার্যক্রমে স্থবিরতা

 1গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি, :: বাংলাদেশ ছাত্রলীগ গোয়াইনঘাট উপজেলা শাখার কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে। প্রায় ৫ বছর ধরে ৪টি পদে রয়েছেন ৪ নেতা। দীর্ঘ এ সময় ধরে শীর্ষ পদগুলো কোনো পরিবর্তন না আসায় যেমন গতি হারাচ্ছে সংগঠন তেমনি কর্মীদের মাঝেও বিরাজ করছে হতাশা।

উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন, গোয়াইনঘাট বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ও উপজেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা না হওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে দলীয় কার্যক্রমে কর্মীদের অনিহা দেখা দেয়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন কর্মী জানান- দলীয় কার্যক্রমকে গতিশীল করতে জরুরিভিত্তিতে উপজেলা ও বিভিন্ন ইউনিয়নের কমিটি পূর্ণাঙ্গ তথা পুনর্গঠন করা প্রয়োজন।

২০১১ সালের ১২ নভেম্বর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসানের নেতৃত্বে গোয়াইনঘাট উপজেলা শহীদ মিনার চত্তরে ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

২০১২ সালের ৩১ মার্চ মো. মিছবাহ উদ্দিনকে সভাপতি ও আসাদুজ্জামান আসাদকে সাধারণ সম্পাদক, শাহজাহান সিদ্দিক সাবুলকে সিনিয়র সহ সভাপতি ও মারুফুল হাসান মারুফকে যুগ্ম সম্পাদক করে ৪ সদস্যবিশিষ্ট উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন করে জেলা ছাত্রলীগ। এরপর থেকে তাদের নেতৃত্বে চলছে সংগঠনের কার্যক্রম।

এব্যাপারে গোয়াইনঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, গোয়াইনঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের ৪ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণার ২ মাসের মাথায় জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি পংকজ পুরকায়স্থকে বহিষ্কার করা হয়। জেলা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি দিয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা ছাত্রলীগের সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক বিধায় পূর্ণাঙ্গ কমিটি করতে পারিনি। বর্তমানে জেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত থাকায় উপজেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা সম্ভব হচ্ছে না।

এব্যাপারে উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মো. মিছবাহ উদ্দিন বলেন, ছাত্রলীগকে আরও সুসংগঠিত ও শক্তিশালী করতে কাজ করা হচ্ছে। উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে কর্মিসভার করার পাশাপাশি সংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে এ ব্যাপারে আলোচনা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, উপজেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের জন্য আমরা বেশ কয়েকবার উদ্যোগ নিয়েছি। কিন্তু জেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন সময় নানা অসুবিধা থাকায় আমরা লক্ষ্য পূরণ করতে পারিনি। শিগগিরই উপজেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের প্রচেষ্টা চলছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open